১১ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২৮শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
মানিকগঞ্জে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ২ হাজার ৭ জন সালথায় সহিংসতায় ৪ হাজার জনকে আসামি করে মামলা করেছে পুলিশ ‘শিশু বক্তা’ মাওলানা রফিকুল ইসলামকে র‌্যাব পরিচয়ে তুলে নেয়ার অভিযোগ! সিঙ্গাইর সদর ইউনিয়ন শ্রমিক লীগের আহ্বায়ক সেলিম ও যুগ্ম-আহ্বায়ক সালাম ফরিদপুরের সালথা উপজেলা পরিষদ ও থানা ঘেরাও, এসিল্যান্ড অফিসে আগুন সিঙ্গাইরে লকডাউন কার্যকরে তৎপর প্রশাসন করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ও অপরাধ নির্মূলে তৎপর সিঙ্গাইর থানা পুলিশ আসুন, ইসলামের চেতনাকে জাতীয় জীবনের সব স্তরে প্রতিষ্ঠা করি: প্রধানমন্ত্রী আলেমদের উপর হামলা ও হত্যার প্রতিবাদে যুবলীগ ছাড়লেন মনির লেবাননে দূতাবাসের উদ্যোগে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী পালিত

আজানের সময় স্পিকারে উচ্চ শব্দে গান: থামাতে বলায় হামলা, আহত ৫

জনশক্তি রিপোর্ট:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় সন্ধ্যার দিকে একদল যুবক স্পিকারে উচ্চ শব্দে গান বাজিয়ে ক্রিকেট খেলছিল। মাগরিবের আজানের সময় হওয়ায় তাদের গান বন্ধ করতে বলেন এক মুসল্লি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওই মুসল্লিকে বেধড়ক পিটিয়ে গুরুতর আহত করেন ওই যুবকরা।

পরে তাকে উদ্ধারে পরিবারের লোকজন এগিয়ে আসলে তাদেরও ওপর হামলায় চালায় যুবকরা। এই হামলার ঘটনায় নারীসহ ৫ জন আহত হয়েছেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার কুটি ইউনিয়নের রামপুর গ্রামে এই হামলার ঘটনা ঘটে।

এদিকে এ ঘটনায় জড়িত থাকায় পুলিশ ৩ যুবককে গ্রেফতার করেছে। তারা হলেন- রামপুর গ্রামের ইকবাল হোসেন (২৬), হৃদয় মিয়া (২৪) ও পানিয়ারুপ গ্রামের কবির মিয়া (৩৩)।

জানা যায়, উপজেলার কুটি ইউনিয়নের রামপুর গ্রামে পশ্চিমপাড়া মসজিদের পাশে গতকাল শুক্রবার বিকেলে স্পিকার উচ্চ শব্দে গান বাজিয়ে গ্রামের একদল যুবক ক্রিকেট খেলছিল। সন্ধ্যায় মাগরিবের আযানের সময় গান বন্ধ করতে অনুরোধ করেন গ্রামের আবুল কাসেম। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ক্রিকেট খেলোয়াড়রা আবুল কাসেমকে অশ্লীল গালাগালসহ বেধড়ক পেটাতে থাকে। এসময় তাকে বাড়ির লোকজন উদ্ধার করতে আসলে তাদের ওপরও আক্রমণ চালানো হয়।

পরে স্থানীয় লোকজন তাদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে সেখানে পুনরায় তাদের ওপর আক্রমণের চেষ্টা চালায় অভিযুক্তরা।

খবর পেয়ে কসবা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। আর এ হামলায় জড়িত থাকায় ৩ জনকে গ্রেফতার করেন।

এদিকে, গুরুতর আহতদের মধ্যে ফারুক মিয়া ও পারভীন আক্তারের অবস্থার অবনতি ঘটলে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রথমে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকা কমফোর্ট হাসপাতালে পাঠানো হয়।

কসবা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লোকমান হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, রামপুরের ঘটনায় ১২ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৩ জনকে গ্রেফতার করে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন