২৫শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • আজ দৈনিক কালের কণ্ঠের সাংবাদিক মোবারকের জন্মদিন




  • আজ দৈনিক কালের কণ্ঠের সাংবাদিক মোবারকের জন্মদিন

    আজ দুই মার্চ সাংবাদিক মোবারক হোসেনের শুভ জন্মদিন। তিনি জাতীয় দৈনিক কালের কণ্ঠের মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর-হরিরামপুর উপজেলা প্রতিনিধি ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতির সিঙ্গাইর উপজেলা শাখার আহ্বায়ক। এছাড়া মোবারক হোসেন জাতীয় দৈনিক যায়য়ায়দিন ও ইংরেজী দৈনিক বাংলাদেশ টুডে পত্রিকার স্থানীয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন। জন্মদিনে এই কলম সৈনিককে মুঠোফোন এবং ফেসবুকে ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন প্রিন্ট ও ইলিকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল এবং পেশাজীবি সংগঠনের নেতা, বন্ধু-বান্ধব ও অসংখ্য শুভাকাঙ্খী।

    মোবারক হোসেন ১৯৭৯ সালের এই দিনে মানিকগঞ্জ জেলার সিঙ্গাইর উপজেলার ধল্লা ইউনিয়নের পূর্ব বাস্তা গ্রামের পৈতৃক নিবাসে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মো: দুলাল মিয়া ও মা প্রয়াত জামিলা খাতুন। তিন ভাই ও দুই বোনের তিনি মধ্যে তৃতীয়। ব্যক্তি জীবনে মোবারক এখনো অবিবাহিত।

    ১৯৯৮ সালে ঢাকার সাভার থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক জাগ্রতকণ্ঠ পত্রিকায় লেখালেখির মাধ্যমে মোবারক হোসেনের সাংবাদিকতায় হাতে খড়ি। এরপর স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় লেখালেখির পর ২০০৭ সালে জাতীয় দৈনিক যায়যায়দিন পত্রিকার মাধ্যমে জাতীয় গণমাধ্যমে পা রাখেন। পরবর্তীতে দৈনিক মানিকগঞ্জের কাগজ, সাপ্তাহিক গণচেতনা, দৈনিক মানুষের কণ্ঠ ও মানিকগঞ্জের খবরসহ স্থানীয় ও জাতীয় বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়া ও অনলাইন নিউজ পোর্টালে কাজ করেন। বর্তমান মোবারক হোসেন জাতীয় দৈনিক কালের কণ্ঠ, যায়য়ায়দিন, ও ইংরেজী দৈনিক বাংলাদেশ টুডেসহ স্থানীয় বিভিন্ন পত্রিকায় স্থানীয় প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন। তার নেশা অন্যায়ের প্রতিবাদ, অনিয়ম দূর্ণীতি ও সমাজের নানা অসংগতি তুলে ধরা। তিনি কখনো অন্যায়ের সাথে আপোষ করেন না। দৃঢ়চেতা এই সাহসী সাংবাদিক প্রশাসনের অসাধু কর্তাব্যক্তি ও প্রভাবশালীদের রোষানলে পরে একাধিকবার হামলা ও মিথ্যা মামলার শিকার হয়েছেন। তার জীবনে সব চেয়ে ন্যাক্কারজনক অধ্যায় হলো-যে অপরাধের বিরুদ্ধে তিনি সারাজীবন যুদ্ধ করে আসছেন, সে অপরাধেই তাকে কারাভোগ করতে হয়েছে। এরপরও তিনি ধমে যাননি। হননি কখনো আদর্শচ্যুত। বৈরি পরিবেশে প্রভাবশালীদের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে সত্য কথা লেখার চেষ্টা করেন। সব সময় থাকেন সত্যের উপর অবিচল। কখনো মাথানত করেননি অ্যান্যায়ের কাছে। জীবননাশ ও চাঁপের মুখে কখনো লিখতে না পারলেও মনেপ্রাণে ঘৃণা করেন অন্যায়কে। একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান সাংবাদিক হিসেবে এলাকায় রয়েছে তাঁর যথেষ্ট সুনাম। ব্যক্তি হিসেবেও তিনি সৎ, নির্লোভ ও ভাল মনের মানুষ।

    সাংবাদিক মোবারক হোসেন বলেন, বিপদগ্রস্থ মানুষের জন্য কিছু করতে পারলে নিজেকে ধন্য মনে হয়। যদি কারো উপকার করতে পারি, সেটাইতে তৃপ্তি। জীবনে কি পেলাম, তাতে দু:খ নেই। মানুষের জন্য কি করতে পারলাম সেটাই মুখ্য বিষয়। মানুষ আমাকে ভাল জানে জানে, এটাই আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া। পছন্দের কোন রং নেই। যখন যেটা সুন্দর ও ভাল লাগে সেটাই আমার কাছে প্রিয়। তবে সাধা রং বেশি পছন্দ। বিশেষ কোনো খাবারের প্রতি দুর্বলতা নেই। যখন যেটা পাই সেটাই খাই। সখ ও নেশা হলো- সৎ পথে থেকে মানুষের উপকার ও অন্যায়ের প্রতিবাদ করা।

    আমার জীবনে স্পেশাল বলে কোন দিন নেই। সব দিন একই রকম। সমাজে অসংখ্য অসহায় নির্যাতিত মানুষ। তাদের জন্য যদি কিছু করতে পারলে আনন্দ পাই। খারাপ লাগে তখন, যখন ভাবি দীর্ঘ জীবন পেলাম। কিন্তু মানুষের জন্য কিছুই করতে পারলাম না।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন