২৮শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • আত্মসমর্পন না করলে মারিওপোলে হামলা থামানো হবে না: পুতিন
  • আত্মসমর্পন না করলে মারিওপোলে হামলা থামানো হবে না: পুতিন

    জনমক্তি রির্পোট

    রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, অবরুদ্ধ ইউক্রেনের মারিওপোল শহরে রুশ সেনাদের হামলা ও গোলাবর্ষণ তখনই শেষ হবে যখন ইউক্রেনীয় সেনারা আত্মসমর্পণ করবে।

    ক্রেমলিন এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাখোঁর সঙ্গে এক ঘণ্টার ফোনালাপের সময় পুতিন এই মন্তব্য করেন।

    তবে ফরাসি কর্মকর্তারা বলেছেন যে, রাশিয়ার নেতা মারিওপোল শহর থেকে বেসামরিক নাগরিকদের সরিয়ে নেওয়ার পরিকল্পনা বিবেচনা করতে সম্মত হয়েছেন।

    সম্প্রতি নতুন স্যাটেলাইট ছবিতে মারিওপোলের ধ্বংসযজ্ঞের চিত্র প্রকাশ করা হয়েছে। পৃথিবী পর্যবেক্ষণ সংস্থা ম্যাক্সার ওই ছবিগুলো প্রকাশ করেছে।

    ছবিগুলোতে দেখা গেছে যে, মারিওপোলের আবাসিক এলাকাগুলো ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে এবং শহরের উপকণ্ঠে রাশিয়ান কামানগুলো দাঁড়িয়ে আছে।

    ফ্রান্সের এলিসি প্রাসাদের কর্মকর্তারা মারিওপোল শহরের পরিস্থিতিকে ‘বিপর্যয়কর’ বলে অভিহিত করেছেন। ফ্রান্স বলছে যে, ‘বেসামরিক নাগরিকদেরকে অবশ্যই সুরক্ষা দিতে হবে এবং তারা চাইলে শহর ছেড়ে চলে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে হবে। তাদেরকে অবশ্যই খাদ্য সহায়তা, পানি এবং তাদের প্রয়োজনীয় ওষুধ দিতে হবে’।

    ফ্রান্সের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘রুশ সেনাদের অবরোধের কারণেই মারিওপোলে এমন ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় দেখা দিয়েছে’।

    ফ্রান্স, তুরস্ক, গ্রীস এবং বেশ কয়েকটি মানবিক সহায়তা প্রদানকারী গোষ্ঠী পুতিনের কাছে শহরটি খালি করার একটি পরিকল্পনা উপস্থাপন করেছে।

    ফরাসি কর্মকর্তারা বলেছেন, পুতিন ম্যাখোঁকে বলেছেন যে, তিনি প্রস্তাবটি নিয়ে ‘ভেবে দেখবেন’।

    কিন্তু ওই ফোনালাপ নিয়ে রাশিয়ার দিক থেকে প্রকাশ করা বিবৃতিতে পুতিন এমন কোন আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানানো হয়নি।

    রুশ কর্মকর্তারা বলেছেন, পুতিন ফরাসি নেতাকে বলেছেন যে ‘এই শহরের কঠিন মানবিক পরিস্থিতি সমাধানের জন্য, ইউক্রেনীয় জাতীয়তাবাদী জঙ্গিদেরকে তাদের প্রতিরোধ যুদ্ধ বন্ধ করতে হবে এবং অস্ত্র ছাড়তে হবে’।

    বিবৃতিতে যোগ করা হয়েছে যে, পুতিন ম্যাখোঁকে ‘জরুরী মানবিক সহায়তা প্রদান এবং অবরুদ্ধ দক্ষিণ-পূর্ব শহর থেকে বেসামরিক নাগরিকদের নিরাপদ সরিয়ে নেওয়া নিশ্চিত করার জন্য রাশিয়ার সামরিক বাহিনীর নেওয়া ব্যবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য’ দিয়েছেন।

    ইউক্রেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে মারিওপোল থেকে হাজার হাজার মানুষকে জোরপূর্বক রাশিয়ার দখলে থাকা ভূখণ্ডে স্থানান্তরিত করার অভিযোগও করেছে।

    এই ফোনালাপের আগের মারিওপোলের মেয়র ভাদিম বয়চেঙ্কো দাবি করেছেন যে, বন্দর নগরীটিতে রাশিয়ার বোমা হামলায় হাজার হাজার সাধারণ মানুষ নিহত হয়েছেন।

    শহর থেকে উদ্ধার হওয়া ভাদিম বয়চেঙ্কো বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন যে, রাশিয়ার গোলাবর্ষণ শুরু হওয়ার পর থেকে প্রায় ২১০ শিশু সহ প্রায় ৫ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন।

    ইউক্রেনে জাতিসংঘের মানবাধিকার মিশনের প্রধান মাতিলদা বোগনার রয়টার্সকে বলেছেন যে, তিনি বিশ্বাস করেন, ‘মারিওপোলে হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়ে থাকতে পারে’।

    আরও পড়ুন