২৫শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • আনোয়ারায় আবারো হাতীর তান্ডবে বসতঘর ভাংচুর




  • আনোয়ারায় আবারো হাতীর তান্ডবে বসতঘর ভাংচুর


    আনোয়ারা প্রতিনিধি : চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলায় আবারো আটটি বসতঘরে তাণ্ডব চালিয়েছে বন্য হাতি। গতকাল রোববার (২১ জুলাই) রাতে উপজেলার বৈরাগ ইউনিয়নের মধ্যম গুয়াপঞ্চক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

    স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,গতকাল রাত ৮ টার পর একটি বন্য হাতি জালাল আহমেদ, জাগির আহমেদ, আবদুল কাদের, মোহাম্মদ ইদ্রিস, আবদুল খালেক, আবদুল হক, মোহাম্মদ আলমগীর ও হাসান আলীর ঘরের দেয়াল ভেঙে দেয়।হাতি রাতভর বাড়িগুলোর গাছ, দরজা, দেয়াল, রান্নাঘর ভাঙে আর আসবাবপত্র তছনছ করে। পাশাপাশি জালাল আহমদের ঘরের তিন বস্তা ধান ছিটিয়ে দেয়।ওই সময় আতঙ্কিত লোকজন দুটি পাকা ঘরের ছাঁদে উঠে অবস্থান নেয়। হাতিটি ফজরের আজানের পর পাহাড়ে উঠে গেলে লোকজন ঘরে ফেরে।

    স্থানীয়রা জানান, গত এক বছরে আনোয়ারায় হাতির আক্রমণে তিনজন নিহত হয়েছেন।আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। হাতির আক্রমণে শতাধিক ঘর ধ্বংস হয়েছে। স্থানীয় লোকজনের অভিযোগ, বন বিভাগ আর প্রশাসন হাতি তাড়াতে ব্যর্থ হওয়ায় বারবার একই ঘটনা ঘটছে।

    এ ব্যাপারে জানতে বন্য প্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা আ ন ম ইয়াসিন নেওয়াজ বলেন,আনোয়ারায় হাতির আক্রমণের ব্যাপারে আমরা উদাসীন নই। আমরা উদ্যোগী হচ্ছি কীভাবে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমিয়ে আনা যায়। ইতিমধ্যে সেখানে পাহারা দল গঠন করা হয়েছে।বন্য হাতি জোর করে সরিয়ে নেওয়া যায় না। তাই এগুলো পাহারায় রাখতে হয়।ঐগুলো স্বাভাবিকভাবে ফিরে যাবে। তাই যখন ফিরে যাবে, তখন যাতে আর না আসে, সে চেষ্টা করা হবে।

    এব্যপারে জানতে চাইলে বৈরাগ ইউপি চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোলায়মান বলেন,কয়েক মাস ধরে এলাকার লোকজনের ঘুম নেই।আতঙ্কে আছে বসবাস করছে এলাকার লোকজন।আজ এই বাড়ি তো কাল ওই বাড়িতে হানা দিচ্ছে হাতি।

    আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদ বলেন,হাতির হানায় আটটি বসতবাড়ি ক্ষতি হওয়ার খবর শুনেছি।এর ব্যবস্হা নেওয়ার চেষ্টা করতেছি।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন