৩০শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
শয়তান যেভাবে মুসলিম ভ্রাতৃত্ব বিনষ্ট করে নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: হাজী সেলিমের ছেলে এরফান গ্রেপ্তার সালাম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ঢাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে মামলা ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হলেন সিঙ্গাইরের কৃতি সন্তান রেজাউল করিম তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদের সুস্থতা কামনায় রাজশাহীতে দোয়া মাহফিল সম্পত্তির লোভে মায়ের লাশ ৫ টুকরো করল ছেলে! কারাফটকে বিয়ে, তারপর মিলবে সাজাপ্রাপ্ত ধর্ষকের জামিন: হাইকোর্ট সিঙ্গাইরে যাত্রীবাহী বাস খাদে, চালকসহ তিনজন নিহত লেবাননে ফের সায়াদ হারিরি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত ডিআইজি হাবিবুর রহমানের জায়গায় হলো বেদে সম্প্রদায়ের কবরস্থান
  • প্রচ্ছদ
  • আরো ১২৯০ জনের মৃত্যুর কথা স্বীকার করল চীন




  • আরো ১২৯০ জনের মৃত্যুর কথা স্বীকার করল চীন

    করোনাভাইরাস মহামারিতে চীনে মৃতের প্রকৃত সংখ্যা নিয়ে বিতর্ক রয়েছে যথেষ্ট। যুক্তরাষ্ট্র শুরু থেকেই বলে আসছে, আক্রান্ত-মৃতের সংখ্যা নিয়ে লুকোচুরি করছে জিনপিং প্রশাসন। এর মধ্যেই নতুন করে প্রায় ১৩শ’ মানুষের মৃত্যুর তথ্য প্রকাশ করল চীন।

    দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা শিনহুয়া জানিয়েছে, উহানে করোনায় মৃতের প্রকৃত সংখ্যা ৩ হাজার ৮৬৯ জন। এ তালিকায় নতুন করে ১ হাজার ২৯০ জনের নাম যোগ করা হয়েছে।

    সংশোধন করা হয়েছে আক্রান্তের সংখ্যাও। নতুন ৩২৫ জন যোগ করে উহানে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫০ হাজার ৩৩৩ জন।

    এতদিন এসব মানুষের মৃত্যুর তথ্য প্রকাশে বিলম্ব হওয়ার বেশ কয়েকটি কারণ উল্লেখ করেছে শিনহুয়া। প্রথম কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, অনেকেই চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার আগেই বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেছেন এবং সেসময় তাদের অনেকেরই করোনার টেস্ট করা হয়নি।

    দ্বিতীয়ত, মহামরির তীব্রতায় মেডিকেল কর্মীরা এতটাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন যে সময়মতো তথ্য জমা দিতে পারেননি।

    আরেকটি কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, মহামারিতে করোনার চিকিৎসা করতে বিভিন্ন বেসরকারি ক্লিনিক ও প্রতিষ্ঠানকে অনুমতি দেয়া হয়েছিল। তাদের অনেকেই কেন্দ্রীয় নেটওয়ার্ক সঙ্গে যুক্ত হতে পারেনি। ফলে সেখানে আক্রান্ত-মৃতের সংখ্যা পেতে দেরি হয়েছে।

    এদিকে, সংশোধনের পরও চীনের মূল ভূখণ্ডে মোট মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্র, ইতালি, স্পেনের চেয়ে অনেক কম। করোনার উৎস হয়েও দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৬৩৬ জন। আর আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ হাজার ৭৫৩ জন।

    সূত্র: টাইম

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন