২১শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৭ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

ঈদ সামনে রেখে ব্যস্ত সময় পার করছে জুঁই-মোশাররফ করিম

জনশক্তি রিপোর্ট:

ছোট পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রোবেনা রেজা জুঁই। সংসার সামলে অভিনয়েও সরব এই অভিনেত্রী। আগামী ঈদুল ফিতর উপলক্ষ্যে নাটকের কাজ নিয়ে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছেন তিনি। সম্প্রতি দুটি সাত পর্বের ধারাবাহিক নাটকের কাজ শেষ করেছেন। আর দুটি নাটকেই সহশিল্পী হিসেবে অভিনয় করেছেন তার বর অভিনেতা মোশাররফ করিম।

এর আগে বেসরকারি টিভি চ্যানেল আরটিভিতে প্রচার হয় ধারাবাহিক নাটক ‘তালমিছরি না হাওয়াই মিঠাই’। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এবার নির্মিত হচ্ছে ‘তালমিছরি না হাওয়াই মিঠাই-২’। এটি রচনা ও পরিচালনা করছেন সাগর জাহান। বাংলা ভিশনের জন্য নির্মিত হচ্ছে ‘মিলব্যারাক কল্যাণ সমিতি’ নামে আরেকটি ৭ পর্বের ধারাবাহিক নাটক। কচি খন্দকার রচিত এ নাটকও পরিচালনা করছেন সাগর জাহান।

এসব নাটকের শুটিংয়ের উদ্দেশ্যে গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর কক্সবাজারে যান জুঁই-মোশাররফ করিমসহ শুটিং ইউনিট। ২৭ ডিসেম্বর থেকে ‘মিলব্যারাক কল্যাণ সমিতি’ নাটকের শুটিং শুরু করেন নির্মাতা। এরপর শুরু করেন ‘তালমিছরি না হাওয়াই মিঠাই-২’ নাটকের শুটিং। ৪ জানুয়ারি এ নাটকের শুটিং শেষ হয়েছে। ১১ দিন পর গতকাল (৫ জানুয়ারি) ঢাকায় ফেরেন জুঁই-মোশাররফ করিম।

‘মিলব্যারাক কল্যাণ সমিতি’ নাটক প্রসঙ্গে রোবেনা রেজা জুঁই রাইজিংবিডিকে বলেন—কচি ভাইয়ের লেখা নাটক তো বরাবরই অন্যরকম। কারণ তার গল্পগুলো ভিন্ন ধারার। তার লেখা ‘ক্যারাম’, ‘ভূগোল’ নাটকে আমরা প্রমাণ পেয়েছি। তার লেখা নাটক দর্শকরাও দারুণভাবে গ্রহণ করেন। কচি ভাইয়ের লেখা নাটকে তৃতীয়বারে মতো কাজ করলাম। এ নাটকে আমি এই কল্যাণ সমিতির সেক্রেটারি, চরিত্রটি একটু অদ্ভূত। কেউ কোনো অন্যায় করলে তা সহ্য করি না। একইসঙ্গে অনেকটা আবেগী প্রকৃতির মানুষ! কবিতা লিখি। চরিত্রটি ভালো লেগেছে।

‘তালমিছরি না হাওয়াই মিঠাই’ নাটকে দর্শক জুঁইকে যে চরিত্রে দেখেছেন এবারো একই চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এ বিষয়ে জুঁই বলেন—আগেরবারের মতো এবারের গল্পটিও দর্শকদের ভালো লাগবে।

‘মিলব্যারাক কল্যাণ সমিতি’ নাটকে আরো অভিনয় করেছেন—মোশাররফ করিম, কচি খন্দকার, ফারুক আহমেদ, তাসনিয়া ফারিন, কাজী নওশবা প্রমুখ। ‘তালমিছরি না হাওয়াই মিঠাই-২’ নাটকে জুঁই ছাড়াও অভিনয় করেছেন—প্রাণ রায়, মোশাররফ করিম, সারিকা সাবা প্রমুখ।

এখনই ঈদের নাটকে কাজ করার কারণ ব্যাখ্যা করে জুঁই বলেন—আসলে ঈদুল ফিতরের সময় খুব বেশি নেই। এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহের শেষের দিকে রোজা শুরু হবে। আর ওই সময়ে গরম পড়ে যায়, যার জন্য কাজ করা কঠিন হয়ে পড়ে। তাছাড়া অভিনয়শিল্পীরাও ব্যস্ত হয়ে পড়েন। এসব বিষয় মাথায় রেখে ঈদের কাজ শুরু করেছেন সাগর জাহান ভাই।

শুটিংয়ের ফাঁকে কক্সবাজারের বিভিন্ন স্থান ঘুরে বেড়িয়েছেন জুঁই। ঢাকায় ফেরার দিনও সৈকতে ঘোড়ার পিঠে চড়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন। তার এ যাত্রায় ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছিল পুত্র রায়ান ও পরিবারের সদস্যরা। কারণ নতুন বছরের প্রথম দিন তারাও মোশাররফ-জুঁইয়ের সঙ্গে যোগ দিতে কক্সবাজারে ছুটে যান। একদিকে শুটিং অন্যদিকে পরিবারের সঙ্গে সময়টা উদযাপন। এ যেন—রথ দেখা আর কলা বেচা!

আরও পড়ুন