২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • উত্তরে আতিক ও দক্ষিণে তাপস




  • উত্তরে আতিক ও দক্ষিণে তাপস

    ঢাকা উত্তরে আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে শেখ ফজলে নুর তাপস আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন।

    শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের প্রার্থী চুড়ান্ত করতে শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে বৈঠক বসে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড। বৈঠকে দুই সিটির মেয়রদের নাম চূড়ান্তভাবে করা হয়। তবে আনুষ্ঠাকি ঘোষণা দেয়া হবে রোববার সকালে।

    এর আগে দলটির ধানমন্ডির সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে উত্তর ও দক্ষিণে ২০ জন মেয়র পদপ্রত্যাশি মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। তাদের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৮ জন এবং উত্তর সিটিতে ১২ জন মেয়র পদপ্রার্থী ছিলেন।

    শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হয়ে শনিবার বিকেল ৫টায় মনোনয়ন ফরম বিতরণ ও জমাদানের কার্যক্রম শেষ হয়।

    ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনে আগামী ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। পুরো নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ইভিএম পদ্ধতিতে। গত ২২ ডিসেম্বর প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা এই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন।

    ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন জমা দেয়ার শেষ সময় ৩১ডিসেম্বর। বাছাই ২ জানুয়ারি এবং মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় ৯ জানুয়ারি নির্ধারণ করা হয়েছে।

    ঢাকা মহানগর উত্তর-দক্ষিণ কাউন্সিলের ফরম বিক্রি হয় ৪২৫ টি। ঢাকা মহানগর উত্তর ২০৩ এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ কাউন্সিলর পদে ফরম বিক্রি হয় ২২২ টি।

    ঢাকা সিটি কর্পোরেশন উত্তরে মেয়র পদ প্রত্যাশিদের মধ্যে ছিলেন-বর্তমান মেয়র আতিকুল ইসলাম, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ ওসমানী, ভাষাণটেক থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মেজর (অব) ইয়াদ আলী ফকির, শহীদ পরিবারের সন্তান জামান ভূইয়া, কুতুবউদ্দিন নান্নু, মোহাম্মদ ইদ্রিস আলী মোল্লা, আলাউদ্দীন মোহাম্মদ, জেরিন সুলতানা কান্তা, হেলেনা জাহাঙ্গীর, আদম তমিজি হক, খায়রুল মজিদ, মিসেস রেহেনা ফরহাদ আইভি।

    দক্ষিণ সিটিতে মনোনয়ন প্রত্যাশি ছিলেন, বর্তমান মেয়র সাঈদ খোকন, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, হাজী মোহাম্মদ সেলিম, আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক নজিবুল্লাহ হিরু, বঙ্গবন্ধু একাডেমীর সভাপতি মো. নাজমুল হক, মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের সাবেক মহাসচিব মুক্তিযোদ্ধা এম এ রশিদ, আশরাফ হোসেন সিদ্দিকী ও হাজী আবুল হাসনাত।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন