২৬শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
সিঙ্গাইর পৌর এলাকায় ন্যায্য মুল্যে ওএমএস’র চাল ও আটা বিক্রি শুরু লকডাউনে সিঙ্গাইরে কারখানা খোলা রাখায় পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা বিধিনিষেধ লঙ্ঘনের দায়ে সিঙ্গাইরে ৫১ জনকে ৫৬৪০০ টাকা জরিমানা এবার ঈদে কোরবানি হয়েছে ৯৭ লাখ পশু, অবিক্রীত ২৮ লাখ ডিসির মহানুভবতা: দণ্ডের পরিবর্তে খাদ্যসামগ্রী পেল অটোরিকশা চালকরা লেবাননে বাংলাদেশী প্রবাসীদের ঈদ আনন্দ মেলা আনন্দঘন পরিবেশে আজকের তরুণ কণ্ঠ’ র বর্ষপূর্তি উদযাপন সিঙ্গাইরে চালককে জবাই করে অটোরিকশা ছিনতাই, গাড়িসহ তিনজন গ্রেফতার বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ সম্প্রীতির মানিকগঞ্জ ফেসবুক গ্রুপের ভিজিএফ চাল পেল সিঙ্গাইর পৌরসভার ৩০৮১ পরিবার

করোনার কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি

করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধের সিদ্ধান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয় নেবে, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক এ মন্তব্য করলেও এ বিষয়ে এখানো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানানো হয়েছে।

রোববার সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়সহ ১৮টি মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধিদের নিয়ে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ বিষয়ে এক বৈঠক শেষে প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা জানান।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে কি-না প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘এ সিদ্ধান্ত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের না, এ সিদ্ধান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয় নেবে।

তবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল খায়ের জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাসের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার বিষয়ে এখনো শিক্ষা মন্ত্রণালয় কোনো রকমের সিদ্ধান্ত নেয়নি। এ বিষয়ে কোনো সিদ্বান্ত নিলে সঙ্গে সঙ্গে সবাইকে জানানো হবে। এ বিষয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সবাইকে অনুরোধ করেন তিনি।

সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো যাতে হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা হ্যান্ডওয়াশের ব্যবস্থা করে এবং স্কুল ছুটি হওয়ার পর টেবিল-চেয়ার পরিষ্কার করায়।’

জনসমাগম এড়িয়ে চলতে বলছেন কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভিড় হয়, সেই বিষয়ে আপনারা কী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জানতে চাইলে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম বলেন, ‘নয় বছর পর্যন্ত শিশুদের আক্রান্তের হার প্রায় শূন্য। স্কুলে প্রতিদিন ভিন্ন ভিন্ন জায়গা থেকে ভিন্ন ভিন্ন লোক আসে না।’

অপরদিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘সভায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবরা ছিলেন। তাদের আমরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও হ্যান্ড ওয়াশের ব্যবস্থা করার জন্য বলেছি। আর স্কুল ছুটি হওয়ার পর ছাত্র-ছাত্রীরা যে টেবিল-চেয়ার ব্যবহার করে থাকেন, এগুলো মুছে সাফ-সুতরো করে রাখেন। জীবাণুমক্ত করে রাখেন।’

সভা-সমাবেশে এমনকি মসজিদে নামাজ পড়তে যেতে নিরুৎসাহিত করছেন, কিন্তু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রাখছেন, এ বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যাওয়া না যাওয়ার বিষয়ে আমরা বলছি না, আমরা সতর্কতা অবলম্বনের জন্য বলছি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখবে না খোলা রাখবে এটি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিষয়। আমাদের পরামর্শ যা দেওয়ার সেটা আমরা দিয়েছি। এটুকু আপনারা আস্থা রাখেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশের মানুষকে নিরাপদ রাখতে চাই। সেজন্য কাজ করছি। আমরা কিছু কারো ওপর চাপিয়ে দিতে পারবো না।

লাইটনিউজ/এসআই

আরও পড়ুন