২৫শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
লকডাউন বাস্তবায়নে কঠোর অবস্থানে সিঙ্গাইর উপজেলা প্রশাসন দায়িত্ব গ্রহণ করলেন মানিকগঞ্জ নবাগত জেলা প্রশাসক আব্দুল লতিফ করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ‘ডেল্টা প্লাস’নিয়ে কেন এত শঙ্কা গোটা বিশ্বের? রাশিয়াকে উড়িয়ে নকআউট পর্ব নিশ্চিত করলো ডেনমার্ক সিঙ্গাইরে শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির টাকা আত্মসাৎ, নগদ এজেন্ট মালিককে অর্থদণ্ড প্রথম দিনে নাম নিবন্ধন করেছে ১৯৪জন পাসপোর্ট নাম্বার বিহীন লেবানন প্রবাসী সিঙ্গাইরে ট্রাকচাঁপায় মটরসাইকেল চালকের মৃত্যু একদিন নয়, প্রতিদিন হোক বাবা দিবস ব্র্যাকের মানবিধকার ও আইন সচেতনতা বিষয়ক মতনিময় সভা পরীমনির বাসা যেন মদের বার, প্রতিদিনই বসে আসর

করোনা: বলিভিয়ার রাস্তা-বাড়ি থেকে ৪০০ মৃতদেহ উদ্ধার!

জনশক্তি ডেস্ক

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের তাণ্ডব থেকে রেহাই পায়নি দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের ছোট্ট দেশ বলিভিয়ারও। প্রাণঘাতি রোগটির অব্যাহত থাবায় বলিভিয়ার জনজীবন বিধ্বস্ত। স্বাভাবিক জীবনের ছন্দ হারিয়ে ফেলেছে গোটা বলিভিয়া রাষ্ট্রটি।

আর এরই মাঝে করোনা নিয়ে নতুন আশঙ্কার কথা শোনাল সেই দেশের পুলিশ প্রশাসন। জানা গেছে, গত পাঁচদিন ধরে বলিভিয়ার বিভিন্ন মেট্রোপলিটন শহরের রাস্তা এবং বাড়ির ভিতর থেকে প্রায় চারশোরও বেশি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে বলিভিয়া পুলিশের ধারণা, মৃতদেহগুলোর মধ্যে ৮৫ শতাংশই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়ে থাকতে পারে।

পুলিশ সূত্রে খবর, বলিভিয়ার কোচাম্বা মেট্রোপলিটন এড়িয়া থেকে চলতি জুলাই মাসের ১৫ থেকে ২০ তারিখ পর্যন্ত প্রায় ১৯১টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়াও ১৪১টি দেহ উদ্ধার হয়েছে লা-পাজ থেকে। এদিকে বলিভিয়ার সবথেকে বড় শহর সান্তাক্রুজ থেকে ৬৮টি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে প্রশাসন।

শুধু তাই নয়, বলিভিয়ার মধ্যে সবথেকে বেশি করোনা সংক্রামিত শহর হল এই সান্তাক্রুজ। এখনও পর্যন্ত এই শহরে মোট ৬০ হাজার মানুষ করোনা সংক্রমণের শিকার।

বলিভিয়ার পুলিশ ডিরেক্টর কর্নেল ইভান রোজাস জানিয়েছেন, উদ্ধার হওয়া মৃতদেহগুলোর মধ্যে ৮৫ শতাংশই করোনা সংক্রামিত। এমনটাই সন্দেহ করা হচ্ছে।

সরকারি সূত্রে আরও জানা গেছে, বলিভিয়ার পশ্চিমাঞ্চল কোচাম্বা এবং লা-পাজে সবথেকে বেশি করোনা আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে।

এখন পর্যন্ত বলিভিয়ায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ৬৪ হাজার ১৩৫ জন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৩২৮ জনের। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৯ হাজার ৭২১ জন।

আরও পড়ুন