২৮শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • কর্মীদের ভালবাসায় ছাত্রলীগ সভাপতির নির্ঘুম যাত্রা




  • কর্মীদের ভালবাসায় ছাত্রলীগ সভাপতির নির্ঘুম যাত্রা

    কুড়িগ্রামের ভুরাঙ্গামারী থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে সোমবার দুপুর ৩টায় যাত্রা শুরু করেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন। এই যাত্রা পথে নেতাকর্মীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও বগুড়া উপনির্বাচনের প্রচারণায় অংশ নিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকায় দলীয় কার্যালয়ে এসে পৌঁছান তিনি। নেতাকর্মীদের ভালবাসায় সিক্ত হয়ে এই দীর্ঘ যাত্রা নির্ঘুম কাটান তিনি।

    জানা যায়, নিজ গ্রাম থেকে যাত্রা শুরু করে প্রতিটি জেলায় নেতাকর্মীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি। এরই মাঝে বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী টি জামান নিকেতার পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণা চালান তিনি। এ সময় ছাত্রলীগ সভাপতি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে সকল নেতাকর্মীকে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আমাদের প্রতীক নৌকা। এই প্রতীককে বিজয়ী করার জন্য সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। এই আসন থেকে নিশ্চয়ই এবার আওয়ামী লীগ প্রার্থী বিজয়ী হবেন।

    যাত্রা পথে রংপুর জেলা সদর ও মিঠাপুকুর; গাইবান্ধার পলাশবাড়ী ও গোবিন্দগঞ্জ; বগুড়া জেলা সদর, মহাস্থানগড়, সাতমাথা, মাটিঢালি ও শেরপুর উপজেলা; সিরাজগঞ্জের বেশ কিছু উপজেলা; টাঙ্গাইল; এলেঙ্গা এবং গাজীপুরে নেতাকর্মীদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও আলোচনা করেন। এ সময় নেতাকর্মীদের কমিটি গঠন ও ছাত্রলীগের ভবিষ্যৎ কার্যক্রম সম্পর্কে দিকনির্দেশনা প্রদান করেন তিনি।

    নির্ঘুম এই যাত্রা শেষে সরাসরি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে প্রবেশ করেন ছাত্রলীগ সভাপতি শোভন। সেখানে সিনিয়র নেতাদের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় শেষে প্রধানমন্ত্রীর সাথে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় ও পরবর্তী দিকনির্দেশনা গ্রহণের জন্য গণভবনে যান তিনি।

    কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীর ঐতিহ্যবাহী আওয়ামী পরিবারের সন্তান রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের মেধাবী ছাত্র। তিনি আইন বিভাগে মাস্টার্সের শিক্ষার্থী।

    শোভনের দাদা মরহুম শামসুল হক চৌধুরী বীর মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধ সংগঠক (৬নং সেক্টর এর প্রচার বিভাগের চেয়ারম্যান), কুড়িগ্রাম-১ আসনের আওয়ামী লীগের এমপি ১৯৭৩ ও ১৯৭৯। ১৯৭৫ পরবর্তী ১৯৭৭ সালে দেশ ও দলের ক্রান্তিলগ্নে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কুড়িগ্রাম জেলা শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০০১ সালেও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর মনোনীত প্রার্থী হিসেবে নৌকা প্রতীকে জাতীয় নির্বাচন করেন।

    শোভনের বাবা, যিনি ১৯৮১ সালে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও ১৯৯১ সালে থানা যুবলীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন । ২০০১ সালে থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (২০০১-২০১০) ও ২০১১ সালে পুনরায় থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (২০১১-অদ্যাবধি)। এর পাশাপাশি তিনি নির্বাচিত উপজেলা চেয়ারম্যান।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন