২৬শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • কারখানায় ভাংচুর-লুটপাটের ঘটনায় শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার চার




  • কারখানায় ভাংচুর-লুটপাটের ঘটনায় শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তার চার

    সাভারে বকেয়া বেতন পরিশোধের দাবিতে কারখানায় ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করেছে কর্তৃপক্ষ।

    শুক্রবার সকালে বহিরাগত চার যুবককে প্রধান আসামী করে অজ্ঞাত পরিচয় ৬০-৭০ জনের বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন ক্ষতিগ্রস্ত রাকেফ এ্যাপারেলস কারখানার উপ-মহা ব্যবস্থাপক শাকিল মাহমুদ। এরই মধ্যে পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে বহিরাগত চার যুবককে গ্রেপ্তার করেছে।

    গ্রেপ্তারকৃতরা হলো- ঠাকুরগাঁওয়ের রাসেল (১৮), লালমনিরহাটের ইয়াছিন (২১), ফরিদপুরের সিয়াম (১৬) ও সৈয়দপুরের মিলন (২২)।

    মামলার বাদি রাকেফ এ্যাপারেলস কারখানার উপ-মহা ব্যবস্থাপক শাকিল মাহমুদ বলেন, বকেয়া বেতনের দাবিতে শ্রমিকরা আন্দোলন করে কাখানায় ভাঙচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটনায়। এতে আমাদের কারখানার মূল ফটক, ভিতরের বিভিন্ন অফিসের গ্লাস, আসবাবপত্র, কম্পিউটার ও মেশিনারীজসহ প্রায় তিন কোটি টাকা মূল্যের মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায়। এঘটনায় কারখানার মালিক-শ্রমিকসহ সকলের মাঝে চরম আতঙ্ক বিরাজ করছে।

    তিনি আরও বলেন, আমাদের কারখানার প্রায় তিন হাজার শ্রমিকের এক মাসের বেতন দেয়ার কথা ছিলো বৃহস্পতিবার। কিন্তু ব্যাংকের জটিলতার কারনে আমরা বেতন দিতে না পারায় শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। পরে বহিরাগত লোকজন শ্রমিক অসন্তোষের সুযোগ নিয়ে কারখানায় ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটায়।

    প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে একটি স্বার্থান্বেষি শ্রমিকদেরকে উসকে দিয়ে কারখানা কর্তৃপক্ষকে চাপে ফেলে ফায়দা নেয়ার চেষ্টা করছে। তবে শ্রমিকদের বকেয়া পাওয়ানাদি আগামী ২২ জানুয়ারী পরিশোধ করা হবে বলেও জানান তিনি।

    মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সাভার মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এনামুল হক বলেন, পোশাক কারখানায় ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এছাড়া ভাংচুরের সময় আটক চার বহিরাগত যুবককে মামলায় প্রধান আসামী করা হয়েছে। এঘটনায় কারখানাটির সিসিটিভি ফুটেজ দেখে হামলা ও ভাংচুরের ঘটনায় জড়িতদের সনাক্ত ও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

    উল্লেখ্য, সাভারের তেঁতুলঝোড়া এলাকায় অবস্থিত রাকেফ এ্যাপারেলস কারখানার প্রায় তিন হাজার শ্রমিক বকেয়া বেতনের দাবিতে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কারখানার ভিতরে বিক্ষোভ শুরু করে। একপর্যায়ে রাত ৭ টার দিকে তারা হেমায়েতপুর-সিংগাইর সড়কে টায়ার জ¦ালিয়ে অবরোধ করে রাখে। এসময় তারা বেশকিছু যানবাহনসহ কারখানার ভিতরে ভাংচুর ও লুটপাট চালায়। এসময় দুর্বৃওরা ওই কারখানা থেকে ল্যাপটপ, কম্পিউটার ও প্রস্তুত করা প্যান্টসহ বিভিন্ন মূল্যবান মালামাল লুটপাট করে নিয়ে যায়। এঘটনায় পুলিশ শ্রমিকদেরকে রাস্তা থেকে সড়ানোর চেষ্টা করলে এবং ভাংচুরে বাঁধা প্রদান করলে বিক্ষোদ্ধ শ্রমিকদের সাথে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। প্রায় তিন ঘন্টা সড়ক অবরোধ থাকার পর রাত ১০ টার দিকে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য ঘটনাস্থলে পৌছে শ্রমিকদেরকে ধাওয়া দিয়ে ছত্রভঙ্গ করে দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন