২৮শে জুলাই, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
অটোরিকশা চালকদের খাদ্যসামগ্রী দিয়ে প্রশংসিত ওসি সিঙ্গাইর পৌর এলাকায় ন্যায্য মুল্যে ওএমএস’র চাল ও আটা বিক্রি শুরু লকডাউনে সিঙ্গাইরে কারখানা খোলা রাখায় পঞ্চাশ হাজার টাকা জরিমানা বিধিনিষেধ লঙ্ঘনের দায়ে সিঙ্গাইরে ৫১ জনকে ৫৬৪০০ টাকা জরিমানা এবার ঈদে কোরবানি হয়েছে ৯৭ লাখ পশু, অবিক্রীত ২৮ লাখ ডিসির মহানুভবতা: দণ্ডের পরিবর্তে খাদ্যসামগ্রী পেল অটোরিকশা চালকরা লেবাননে বাংলাদেশী প্রবাসীদের ঈদ আনন্দ মেলা আনন্দঘন পরিবেশে আজকের তরুণ কণ্ঠ’ র বর্ষপূর্তি উদযাপন সিঙ্গাইরে চালককে জবাই করে অটোরিকশা ছিনতাই, গাড়িসহ তিনজন গ্রেফতার বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণ সম্প্রীতির মানিকগঞ্জ ফেসবুক গ্রুপের

দুই দিনে হরিরামপুরে নাজমা হত্যা মামলার চার্জশিট

মোবারক হোসেন:

মোবারক হোসেন:

মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে গৃহবধু নাজমা বেগম (৪০) হত্যা মামলার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিল করেছে থানা পুলিশ। একমাত্র খুনি রফিক মিয়াকে (৪২) অভিযুক্ত করে মঙ্গলবার (৬ জুলাই) আদালতে এই হত্যা মামলার চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো: আরিফুল্লাহ। এর আগে মামলার আলামত উদ্ধারসহ চার্জশিটের যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করা হয়। অভিযুক্ত রফিক মিয়া রফিক উপজেলার সরফদিনগর গ্রামের মোঃ শফিক মিয়ার ছেলে।

মামলার অভিযোগপত্র সূত্রে জানা গেছে, গত রবিবার (৪ এপ্রিল) সকাল ৬ টার দিকে হরিরামপুর উপজেলার সরফদিনগর গ্রামের মোঃ ইসলাম সরদারের স্ত্রী নাজমা বেগম নৌকায় করে প্রতিবেশি রফিক মিয়ার ধান ক্ষেতের পাশ দিয়ে মরিচ তুলতে যাচ্ছিলেন। এনিয়ে দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে রফিক মিয়া বাঁশ দিয়ে নাজমা বেগমকে পিটিয়ে জখম করে। এসময় নাজমা বেগমের আর্তচিৎকারে স্বজন ও আশপাশের লোকজন এগিয়ে গেলে রফিক মিয়া দৌড়ে পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মানিকগঞ্জ মুন্নু মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ও পরে ঢাকার ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্স হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ওই দিনই সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় নাজমা বেগম মারাযান।

 

এঘটনায় একমাত্র রফিক মিয়াকে আসামী করে থানায় হত্যা মামলা করেন নিহত নাজমা বেগমের ছেলে মোঃ জনি মিয়া (১৯)।

হত্যাকাণ্ডের তিন ঘন্টার মধ্যে হরিরামপুর থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) সৈয়দ মিজানুর ইসলাম, ওসি তদন্ত মো: মোশারফ হোসেন ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপপরিদর্শক (এসআই) মো: আরিফুল্লাহ অভিযান চালিয়ে আসামী রফিক মিয়াকে গ্রেফতার করে। সেই সঙ্গে হত্যাকাণ্ডের আলামত উদ্ধার করা হয়। গত সোমবার (৫ জুলাই) আদালতে হাজির করলে বিচারকের কাছে নাজমা বেগম হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন রফিক মিয়া।

ঘটনার ৪৮ ঘন্টার মধ্যে তদন্দ কাজ সম্পন্ন করে মামলার একমাত্র আসামী রফিক মিয়াকে অভিযুক্ত করে মঙ্গলবার(৬ জুলাই) আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়।

তদন্ত কর্মকর্তা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো: আরিফুল্লাহ বলেন, ঘটনার পর মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম, সহকারি পুলিশ সুপার (সিঙ্গাইর সার্কেল) রেজাউল হক, ওসি সৈয়দ মিজানুর ইসলাম ও ওসি তদন্ত মো: মোশারফ হোসেন স্যার সার্বক্ষনিক খোজ খবর রাখেন ও দিকনির্দেশনা দেন। স্যারদের কঠোর নির্দেশ ও সহযোগীতায় আসামী গ্রেফতারসহ আইনগত যাবতীয় কাজ সম্পন্ন করে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে মামলার একমাত্র আসামী রফিক মিয়াকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করা হয়। এযাবতকালে হরিরামপুর থানায় আর কোনো মামলার এত দ্রুত সময়ে চার্জশিট প্রদান করা হয়নি বলে জানান তিনি।

থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) সৈয়দ মিজানুর ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনী এখন আগের থেকে অনেক উন্নত ও জনবান্ধব। মামলা তদন্ত দীর্ঘসূত্রতা দূরকরণ ও ন্যায় বিচার নিশ্চিতকরণের লক্ষে অতি অল্প সময়ে তদন্ত সম্পন্ন করে গৃহবধু নাজমা বেগম হত্যা মামলার চার্জশিট প্রদান করা হয়েছে। যাতে করে পুলিশের প্রতি জনসাধারণের আস্থা বাড়ে। এবং ন্যায় বিচার নিশ্চিত হয়।

আরও পড়ুন