২৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • দু’জন এএসপি রামগতি সার্কেল মারুফা নাজনীন ও স্পীনা রানী প্রমানিক জনতার বন্ধু




  • দু’জন এএসপি রামগতি সার্কেল মারুফা নাজনীন ও স্পীনা রানী প্রমানিক জনতার বন্ধু

    দেলোয়ার হোসেন মৃধ্যা, লক্ষ্মীপুর: কর্ম মানুষের জীবনকে আলোয় আলোকিত করে দেয়। একজন বিখ্যাত মানুষ বলেছেন সাধু সেজনা সাধু হও। বিখ্যাত হওয়ার বাসনা মানুষকে কখনো খ্যাতির সীমানায় পৌঁছে দিতে পারে না। নিরবিচ্ছিন্ন কর্তব্য আর মহান অর্পিত দায়িত্ববোধ সততা আর যোগ্যতার মাধ্যমে মানুষ অমরত্ব লাভ করতে পারে।

    রায়পুর ও রামগঞ্জ উপজেলার আইন-শৃংখলার উপরস্ত্র পদে থেকেও সকল মানুষের সমস্যা সমানভাবে সমাধানের চেষ্টা করে প্রমাণ করেছেন আইন শাসক নয় সেবক।

    মানুষকে ভালবাসার মধ্যে কি আনন্দ সেটা তিনি নিজের জীবনে প্রতিফলন করে প্রমাণ করেছেন ও অন্যদেরকে প্রেরণা দিয়েছেন।

    পুরুষ শাসিত সমাজে নারীরা জেন্ডার বৈষম্যের মনস্তান্তিক হীনমন্যতার বেষ্টনীর মধ্যে আবদ্ধ থাকে এই জনপদে একজন নারী কর্মকর্তা প্রমাণ দিয়েছেন নারী-পুরুষের পার্থক্য মানুষের সংঘায় নেই। নারীরা পুরুষের থেকেও দক্ষ সেটা তিনি প্রমাণ করেছেন।

    সততা প্রমাণ করার বিষয় নয়। অদৃশ্য উপলব্ধির মাধ্যমেই দৃশ্যমান এক মহিরুপ। তিনি প্রমাণ করেছেন একজন মানুষ সৎ থাকতে চাইলে দুনিয়ার কোন অসৎ শক্তি তাকে স্পর্শ করতে পারে না।

    স্পিনা রানী প্রামাণিক রায়পুর ও রামগঞ্জ এর মানুষের মাঝে সততার এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে মানুষের সততা এবং ন্যায় এর সাহস থাকে অদম্য। চৌকস ও কর্মঠ নারী পুলিশ অফিসার আপনারা।

    রামগতি-কমলনগরে,রায়পুর রামগঞ্জে যেখানে অনিয়ম সেখানেই আপনারা স্ব-শরীরে হাজির। সৎ নিষ্ঠাবান পুলিশ অফিসার আপনারা সুনাম কুড়িয়েছেন। আপনাদের কর্মদক্ষতা আন্তরিকতা ও সাহসীকতায় গর্বিত রায়পুর, রামগঞ্জ, রামগতিও কমলনগরবাসী। মারুফা নাজনীন, রামগতি কমলনগরে স্পীনা রানী রায়পুর রামগঞ্জে যোগদানের পর থেকে চারটি উপজেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থতি ব্যাপক উন্নতির পথে। যে কোন মামলা হামলা ও অভিযোগ আপনারা সাহসীকতার সাথে একেবারে ভিতরে ঠুকে মুল অপরাধী সনাক্ত করতে সক্ষম হয়েছে এ নারী পুলিশ অফিসারবৃন্দ।

    কে ছোট কে বড় সে হিসাব আপনারা না করে সবাই এ দেশের নাগরিক এমন চিন্তা নিয়ে আপনাদের কাজ করাই আপনাকে এগিয়ে নিবে বহুদুর।

    থানায় কোন মানুষ এখন আর হয়রানীর শিকার হয়না। “জনতাই পুলিশ পুলিশই জনতা”এই শ্লোগান কে বাস্তব রুপ দিতে সক্ষম হয়েছেন মারুফা নাজনীনও স্পীনা রানী। মানুষ সারা জীবন বেঁচে থাকে তাঁর কর্মের ফলে। তাই মারুফা নাজনীন ও স্পীনা রানীও আমাদের অন্তরে বেঁচে থাকবে সব সময়।

    শুধু অভিনন্দন দিয়ে আপনাকে ছোট করবোনা। রাত দিন যে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন আপনারা। তা চারটি উপজেলার মানুষ আপনাদের সব সময় শ্রদ্ধার সাথে স্বরণ করবে। আপনারা পারবেন পুলিশ বিভাগের হারানো সেই ঐতিহ্য ফিরেয়ে আনতে। আপনাদের মতো পুলিশ অফিসারই পারবেন একটি সমাজ কে বদলে দিতে।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন