৩০শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
শয়তান যেভাবে মুসলিম ভ্রাতৃত্ব বিনষ্ট করে নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর: হাজী সেলিমের ছেলে এরফান গ্রেপ্তার সালাম নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য: ঢাবি অধ্যাপকের বিরুদ্ধে মামলা ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ শিক্ষক হলেন সিঙ্গাইরের কৃতি সন্তান রেজাউল করিম তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদের সুস্থতা কামনায় রাজশাহীতে দোয়া মাহফিল সম্পত্তির লোভে মায়ের লাশ ৫ টুকরো করল ছেলে! কারাফটকে বিয়ে, তারপর মিলবে সাজাপ্রাপ্ত ধর্ষকের জামিন: হাইকোর্ট সিঙ্গাইরে যাত্রীবাহী বাস খাদে, চালকসহ তিনজন নিহত লেবাননে ফের সায়াদ হারিরি প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত ডিআইজি হাবিবুর রহমানের জায়গায় হলো বেদে সম্প্রদায়ের কবরস্থান
  • প্রচ্ছদ
  • ধর্ষণকারীদের বিরুদ্ধে মিছিল করায় শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগ




  • ধর্ষণকারীদের বিরুদ্ধে মিছিল করায় শিক্ষার্থীকে পেটালো ছাত্রলীগ

    জনশক্তি রিপোর্ট:

    দেশ ব্যাপী আলোচিত ধর্ষণের প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেওয়ায় শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগ। মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায় এক শিক্ষার্থীকে ডেকে নিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে তাকে পেটানোর অভিযোগ উঠেছে। মঙ্গলবার বিকেলে জুড়ী উপজেলার নাইট চৌমূহনা এলাকায় এই ঘটনাটি ঘটে।

    জানা যায় সম্প্রতি এমসি কলেজে ছাত্ররীগ নেতাকর্মীর গণধর্ষণসহ সারাদেশের ধর্ষণকারীদের গ্রেফতার ও উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে সোমবার জুড়ী বাজারে এক বিক্ষোভ মিছিল করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। এই রেশ ধরে জুড়ী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ কয়েকজন নেতাকর্মী মিলে শাহাব উদ্দিন (২৭) নামের ওই শিক্ষার্থীকে বেদড়ক মারধর করে।

    পরে গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেন।

    নির্যাতনের শিকার শিক্ষার্থী শাহাব উদ্দিন বলেন জুড়ীতে দেশব্যাপী ধর্ষণের প্রতিবাদে একটি বিক্ষোভ মিছিল হয়। সেটিতে আমিও ছিলাম।

    এই টার্গেট নিয়ে দুপুরে জুড়ী বাজারে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন সাবেল ও সাধারণ ইকবাল ভূঁইয়া আমার মোটরসাইকেলে উঠে। বলে আমার সাথে কথা আছে। চা খেতে খেতে বলা যাবে। এই বলে তারা আমাকে নাইট চৌমুহনায় নিয়ে যায়। ওখানে আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা ১৫-২০ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী হঠাৎ করে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশে আমার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তাদের বেদড়ক পিটুনীতে আমি জ্ঞান হারিয়ে ফেলি। পরে স্থানীয়রা ওখান থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। তিনি বলেন একপর্যায়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। পরে আমার মোটরসাইকেলটি থানায় নিয়ে যায়।

    এবিষয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহাব উদ্দিন সাবেল বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি।

    জুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সঞ্জয় চক্রবর্তী বলেন আমরা এরকম কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেবো। বিকেলে চৌমুহনায় একটি মোটরসাইকেল পেয়েছি। মালিকানা যাচাইয়ের জন্য সাইকেলটি থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

    Print Friendly, PDF & Email

    আরও পড়ুন