১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

নৌকায় করে ভারতে পালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সাহেদ

জনশক্তি ডেস্ক

এ সময়ের আলোচিত রিজেন্ট হাসপাতাল প্রতারণা মামলার প্রধান আসামি ও রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত দিয়ে নৌকায় করে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। এ সময় তিনি জিন্সের প্যান্ট ও নীল রঙের শার্টের ওপর কালো রঙের বোরকা পরে ছিলেন। এমন অবস্থায় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। র‍্যা্বের সাতক্ষীরার কোম্পানি কমান্ডার (সিপিসি-১) বজলুর রশীদ এ তথ্য জানান।

বজলুর রশীদ বলেন, সাতক্ষীরার দেবহাটা উপজেলার কোমরপুর বেইলি ব্রিজের দক্ষিণ পাশের লবঙ্গবতি নদীর পাড় থেকে সাহেদকে গ্রেপ্তার করা হয়। নদীর ঠিক ধারে একটি নৌকা রাখা ছিল। ওই নৌকায় উঠে ভারতে পালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন সাহেদ। ঠিক সে সময় তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।’

সাহেদের কাছ থেকে একটি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি জব্দ করা হয়েছে বলে জানান র‍্যাব কর্মকর্তা। গ্রেপ্তারের পর সাহেদকে সাতক্ষীরা জেলা স্টেডিয়ামে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁর জন্য হেলিকপ্টার রাখা আছে। ওই হেলিকপ্টারে করে সাহেদকে ঢাকায় নিয়ে আসছে র‍্যাব।

বজলুর রশীদ বলেন, ‘র‍্যাব সদর দপ্তরের গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য ছিল সাহেদ তাঁর নিজ জেলা সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। সেই তথ্যের ভিত্তিতে সদর দপ্তর থেকে গোয়েন্দা কর্মকর্তাসহ স্যারেরা এখানে এসেছেন। সারারাত ধরে আমরা সীমান্ত এলাকায় আমাদের টহল জোরদার করি। রাতভর অভিযান শেষে ভোর ৫টা ১০ মিনিটে আমরা তাঁকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হই।’

এদিকে র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক আশিক বিল্লাহ বলেন, ‘আজ বুধবার ভোর ৫টা ১০ মিনিটের দিকে র‍্যাবের বিশেষ অভিযানে সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত এলাকা থেকে মো. সাহেদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারের সময় তাঁর কাছে অবৈধ বিদেশি পিস্তল ও গুলি পাওয়া গেছে।’

আরও পড়ুন