২৮শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • বহু অপকর্মের হোতা ভূয়া সাংবাদিক মুকুল গ্রেফতার
  • বহু অপকর্মের হোতা ভূয়া সাংবাদিক মুকুল গ্রেফতার

    জনশক্তি রির্পোট

     

    বহু অপকর্মের হোতা মোস্তাফিজুর রহমান খান মুকুল (৩৫) নামে এক ভূয়া সাংবাদিককে গ্রেফতার করেছে মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর থানা পুলিশ। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মামলায় বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) দিবাগত রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত মুকুল ধল্লা ইউনিয়নের ফোর্ডনগর খানপাড়া গ্রামের মৃত জামান মাদবরের ছেলে। সে দীর্ঘ দিন ধরে নাম সর্বস্ব নিবন্ধনবিহীন অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও আইপি টিভির (ফেসবুক টিভি) সাংবাদিক পরিচয়ে উপজেলার সর্বত্র বিভিন্ন অপকর্ম, প্রতারণা ও চাঁদাবাজি করে আসছিল। মুকুল গ্রেফতার হওয়ায় স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলেছে এলাকার সব শ্রেণীরপেশার মানুষ।

    মোস্তাফিজুর রহমান খান মুকুল দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন অপকর্ম ও চাঁদাবাজি করে উপজেলার সর্বত্র দাপিয়ে বেড়িয়ে আসছিল। তার বিরুদ্ধে সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও নিরাপরাধ মানুষকে জিম্মি করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ারও অভিযোগ রয়েছে। চাহিদা মোতাবেক টাকা না দিলে সমাজের নিরাপরাধ ও সম্মানিত মানুষের বিরুদ্ধে অপমানজনক , আপত্তিকর মন্তব্য প্রচারণা চালানো হতো। মিথ্যা ও মানহানিকর সংবাদ প্রকাশের ভয় দেখিয়ে তাদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় মোটা অংকের টাকা। প্রশাসনের অসাধু কর্মকর্তাদের সাথে সখ্যতা থাকায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেও প্রতিকার পেতনা ভূক্তভোগীরা।

    সম্প্রতি দৈনিক ভোরের কাগজের স্থানীয় প্রতিনিধি মাসুম বাদশা ‘র ব্যক্তিগত ও পারিবারিক বিষয়াদি নিয়ে ফেসবুকে আপত্তিকর লেখালেখি করে মোস্তাফিজুর রহমান খান মুকুল। এমন অভিযোগের ভিত্তিতে বৃহস্পতিবার রাতে মুকুলের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে থানায় মামলা দায়ের করেন মাসুম বাদশাহ। ওই রাতেই মুকুলকে গ্রেফতার করে আদালতে পাঠায় থানা পুলিশ। তার জামিন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন আদালতের বিচারক। মুকুল এর আগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৫৭ ধারা মামলায় কারাভোগ করেন। বর্তমান মামলাটি সাইবার ট্রাইব্যুনালে বিচারাধীন রয়েছে।

    ধল্লা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম ভূইয়া বলেন, মুকুলের নিজস্ব কোনো পেশা নেই। সে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে মানুষের কাছ থেকে চাঁদাবাজি ও প্রতারণা করে টাকা পয়সা হাতিয়ে নিত। মুকুল গ্রেফতার হওয়ায় স্বস্তির নি:শ্বাস ফেলেছে এলাকাবাসী। তার দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি হওয়া প্রয়োজন।

    সিঙ্গাইর থানার পুলিশ পরিদর্শক ( ওসি তদন্ত) শেখ আবু হানিফ বলেন, মুকুলকে গ্রেফতার করার পর শুক্রবার (২৫ মার্চ) দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়। তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি জব্দ করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে মুকুলের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    আরও পড়ুন