৪ঠা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৯শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
দলীয় কোন্দলেই ছাত্রলীগ নেতা মিরু খুন: তিনজন গ্রেফতার নবনির্বাচিত মেয়রের সাথে সিঙ্গাইর পৌর কর্মকর্তা-কর্মচারীদের শুভেচ্ছা বিনিময় ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থীদের ছাড় দিচ্ছে আওয়ামী লীগ অভিবাসীদের কর্মসংস্থান নিশ্চিতে বিডি প্রেসক্লাব অব মালয়েশিয়ার ভার্চুয়াল আলোচনা নিজ দলের সন্ত্রাসীদের হাতে সিঙ্গাইর উপজেলা ছাত্রলীগ সম্পাদক মিরু খুন মাহবুবুর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনায় মালয়েশিয়া যুবদলের দোয়া মাহফিল আজ দৈনিক কালের কণ্ঠের সাংবাদিক মোবারক হোসেনের জন্মদিন লেবাননে অনলাইন পোর্টাল “প্রবাস দর্পণ”এর ৫ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন ঐক্যবদ্ধ লেবানন বিএনপি সিঙ্গাইর পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাশার জয়ী

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগের ঘোষণা

জনশক্তি ডেস্ক: পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। আগামী ৭ জুন তিনি কনজারভেটিভ পার্টির দলীয় প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করবেন বলে জানিয়েছেন। থেরেসা জানিয়েছেন, নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের পথ সুগম করতেই তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। নিয়ম অনুযায়ী দলীয় প্রধানের পদে না থাকলে প্রধানমন্ত্রী পদেও থাকতে পারবেন না থেরেসা।

শুক্রবার ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিটে আবেগঘন এক প্রেস ব্রিফিংয়ে থেরেসা বলেছেন, ২০১৬ সালের গণভোটের ফলাফলকে সম্মান জানাতে আমি আমার সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছি।

থেরেসা আরো বলেন, ব্রেক্সিট বাস্তবায়ন না করতে না পারার বিষয়টি হতে তার জন্য গভীর অনুশোচনার। তবে একজন নতুন প্রধানমন্ত্রী দেশের সর্বোচ্চ স্বার্থ রক্ষা করবেন বলে তার বিশ্বাস।

শুক্রবার থেরেসা বলেন, ব্রিটেনের দ্বিতীয় নারী প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করা ছিলো আমার জন্য অত্যন্ত গর্বের। এসময় তার কণ্ঠ ধরে আসে। কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হওয়াট ছিলো আমার জীবনের সবচেয়ে সম্মানজনক ঘটনা। ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে গত কয়েক মাসের দেনদরবারের পর দলীয় এমপিদের বিরোধীতার মুখে তিনি পদত্যাগের ঘোষণা দিলেন। ব্রেক্সিট চুক্তি নিয়ে তার পরিকল্পনা অনুমোদন পায়নি মন্ত্রীসভা ও পার্লামেন্টে।

২০১৬ সালে ব্রিটেনের ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বেরিয়ে যাওয়া(ব্রেক্সিট) বিষয়ক গণভোটে ব্রেক্সিটের পক্ষে রায় আসার পর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরানের পদত্যাগের পর থেরেসা কনজারভেটিভ পার্টির প্রধান নির্বাচিত হন এবং মার্গারেট থ্যাচারের পর দ্বিতীয় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করে। ওই বছর ১৩ জুলাই তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিলেন। সূত্র: অনালাইন

আরও পড়ুন