১৫ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১লা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

মানবসেবায় নিজের জীবন উৎস্বর্গ করতে চান কাউন্সিলর সমেজ উদ্দিন

জনশক্তি রিপোর্ট:

মানবসেবায় নিজের জীবন উৎস্বর্গ করতে চান মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো: সমেজ উদ্দিন। ইতিমধ্যে তিনি করোনা সংকট ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক ‍দুর্যোগসহ সব সময় অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে খাদ্য ও আর্থিক সহায়তার মাধ্যমে এলাকাবাসীর কাছে প্রসংসিত হয়েছেন। এছাড়া এলাকার উন্নয়ন কর্মকান্ডে রয়েছে তার অসামান্য অবদান।

সমেজ উদ্দিন আসন্ন পৌরসভার নির্বাচনে দ্বিতীয়বারের মতো কাউন্সিলর প্রার্থী ঘোষনা দিয়ে পাড়া মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন। অংশগ্রহণ করছেন দলীয় কর্মকাণ্ড, ধর্মীয়, সাংস্কৃতিক ও সামাজিক অনুষ্ঠানে। খোজ খবর নিচ্ছেন গরীব-দু:খী অভাবী মানুষের। এবার বিজয়ী হয়ে এলাকার উন্নয়ন ও সমাজসেবায় বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করবেন বলে জানান তিনি।

সমেজ উদ্দিন সিঙ্গাইর পৌর সভার ৩ নং ওয়ার্ডের আজিমপুর গ্রামের আব্দুস সাত্তারের কনিষ্ঠ ছেলে ও উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রমিজ উদ্দিনের ছোট ভাই। ২০০৬ সালে তিনি সিঙ্গাইর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি, ২০০৮ সালে সিঙ্গাইর বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ থেকে এইচ,এসসি. ২০১১ সালে বিবিএস (ব্যাচেলর অব বিজনেস) ও ২০১৫ সালে বাংলাদেশ পিপুলস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমবি.এ (মাস্টার্স অব বিজনেস) ডিগ্রি অর্জন করেন।

মুজিব আদর্শের একজন সৈনিক সমেজ উদ্দিন। ছাত্রলীগ করার মাধ্যমে তিনি সরাসরি রাজনীতিতে পা রাখেন। ২০১৩ সালে সমেজ উদ্দিন সিঙ্গাইর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্র সংসদের ছাত্রলীগ মনোনীত সহ-সভাপতি (ভিপি) নির্বাচিত হন। এরপর আর তাকে পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০১৬ সালে ২৫ বছর বয়সে সিঙ্গাইর পৌরসভা নির্বাচনে প্রথমবারের মতো কাউন্সিলর হন। সপথ নেওয়ার পর আত্মনিযোগ করেন মানবসেবায়। অল্পদিনেই নিজের কর্মগুণে জায়গা করে নেন এলাকাবাসীর হৃদয়ে। যোগ্যতা বলে কাউন্সিলরদের সমর্থনে পৌরসভার প্যানেল মেয়র মনোনীত হন তিনি। এছাড়াও পৌর কাউন্সিলর এসোসিয়েশন-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছেন সমেজ উদ্দিন।

সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল আজিজসহ বেশ কয়েকজন সচেতন ব্যক্তি জানান, কাউন্সিলর সমেজ উদ্দিন একজন ভাল মানুষ। পরোপকারী ও সমাজসেবক হিসেবে দলমত নির্বিশেষে এলাকার সব শ্রেণীপেশার মানুষ তাকে ভালবাসে। তিনিও সব সময় জনগনের বিপদ-আপদ ও সুখ-দু:খে পাশে থাকেন। কোথাও কোনো সমস্যা হলে তিনি তা দ্রুত ছুটে যান সেখানে। চেষ্টা করেন সমাধানের। ভুমিকা রাখছেন অবহেলিত জন্গোষ্ঠীর আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়নে। ৩ নং ওয়ার্ডের জনসাধারণের আশা-আকাঙ্খা পূরণ করা তার পক্ষেই সম্ভব। যা অন্য কারো দ্বাড়া সম্ভব নয়।

যুবলীগ নেতা শেখ মো: মাসুদ বলেন, এলাকার উন্নয়ন ও মানবসেবায় সমেজ উদ্দিন সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন। তিনি পরোপকারী মানুষ। সমাজের অবহিলত অসহায় দরিদ্র জনগোষ্ঠির জীবনমান উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখে ৩ নং ওয়ার্ডবাসীর মনে জায়গা করে নিয়েছেন। বিপদ-আপদে সব সময় জনগণের পাশে দাড়ান তিনি। সারা বছর খোঁজ খবর নেন সমাজের অভাবগ্রস্থ মানুষের। দান অনুদান দেন মসজিদ, মাদ্রাসা, স্কুল-কলেজ ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানে। চেষ্টা করছেন নিজ এলাকাকে উন্নয়নের মডেল হিসেবে গড়ে তোলার। এছাড়া পারিবারিক বিরোধ মিমাংসা ও তাৎক্ষণিক সমস্যার সমাধানে রয়েছে তার বেশ খ্যাতি। ভোটাররা এবারও তাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন। তার বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবেনা বলে জানান তিনি।

পৌর কাউন্সিলর সমেজ উদ্দিন বলেন, মানুষের সেবা করা আমার নেশা। ৩ নং ওয়ার্ডের শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কৃষি ও যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ সকল উন্নয়নে আমার ভূমিকা রয়েছে। অবহিলত জনগোষ্ঠীর ভাগ্য উন্নয়নে নিরালস ভাবে কাজ করেছি। সরকারি ও ব্যক্তিগত ভাবে সাহায্য সহযোগীতা করা হয়েছে ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানসহ সমাজের পিছিয়ে পড়া গরীব মানুষদের। এছাড়া এলাকার ছাত্র যুবকদের সাথে নিয়ে চেষ্টা করছি মাদকমুক্ত ও পরিবেশ বান্ধব সমাজ গঠনের।

তিনি আরো বলেন, এলাকার সব মানুষ আমার চেনা জানা। সব সময় এলাকাবাসীর খোজ খবর নেই। সাধ্যমত চেষ্টা করি তাঁদের দু:খ-কষ্ট মোচনের। চলমান করোনা সংকট ও বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে গরীব-দু:খী মানুষের পাশে ছিলাম। দিয়েছি খাদ্য ও অর্থ সহায়তা। আজীবন এলাকাবাসীর সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখবো। আশা করছি, এবারও ভোটাররা আমার কাজের মূল্যায়ন করবেন। সারাজীবন যেন গরীব-দু:খী মানুষের সেবা করতে পারেন সেজন্য এলাকার সব শ্রেনীপেশার মানুষের দোয়া কামনা করেন পৌরসভার এই কনিষ্ঠ প্যানেল মেয়র।

আরও পড়ুন