৩০শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • মানিকগঞ্জে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে নিরাপত্তাকর্মীকে জুতাপেটা করল নারী




  • মানিকগঞ্জে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে নিরাপত্তাকর্মীকে জুতাপেটা করল নারী

    জনশক্তি ডেস্ক:

    যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মানিকগঞ্জের হরিরামপুরে একটি ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মীকে নিজের পায়ের স্যান্ডেল দিয়ে পিটিয়েছেন এক নারী এনজিও কর্মী। গতকাল রবিবার (১ নভেম্বর) বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক হরিরামপুর উপজেলা শাখা কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। ওই নিরাপত্তাকর্মীর নাম মো: দুলাল মিয়া। তিনি জেলার শিবালয় উপজেলার শিবরামপুর গ্রামের জিলাল উদ্দিনের ছেলে ও ব্যাংকটির নিরাপত্তাকর্মী। এঘটনায় দুলাল মিয়াকে তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যাংকের ব্যবস্থাপক মো: জামাল উদ্দিন।

    ভুক্তভোগী নারী জানান, আমি একটি বেসরকারী সংস্থায় (এনজিও) মাঠ পর্যায়ে চাকুরি করি। গত ২৯ অক্টোবর (বৃহস্পতিবার) বিকাল চারটার দিকে ব্যক্তিগত কাজে বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক হরিরামপুর উপজেলা শাখায় যাই। কাজ শেষে বিকাল সাড়ে চারটার সময় সিঁড়ি বেয়ে নীচে নামছিলাম। এসময় ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী দুলাল মিয়া পথরোধ করে জোড়পূর্বক আমার শরীরের স্পর্শকাতর জায়গায় হাতাহাতি ও যৌন নিপীড়ণ করে। লাজলজ্জার ভয়ে প্রথমে বিষয়টি চেপে যাই। কিন্তু ঘটনাটি কোনো ভাবেই মেনে নিতে পারছিলাম না। পরে বিষয়টি স্থানীয় সাংবাদিক আবিদ হাসান ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদুর রহমানকে জানানো হয়। এ নিয়ে গতকাল রবিবার দুপুরে ব্যাংকের ব্যবস্থাপক জামাল উদ্দিনের কক্ষে সালিশী বৈঠক হয়। সালিশী বৈঠকে ভুল স্বীকার করে নিরাপত্তাকর্মী আমার পা ধরে মাফ চায়। জানোয়ারটাকে সামনে পেয়ে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। এসময় নিজের পায়ের স্যান্ডেল দিয়ে তাকে পিটানো হয়। মান-সম্মানের ভয় ও ঝামেলা এড়াতে আইনের আশ্রয় নেয়নি।

    উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাসুদুর রহমান বলেন, ভুক্তভোগী নারী অত্যন্ত ভাল ও পর্দাশীল। ওর সাথে এমন ঘটনা ঘটবে কল্পনা করতে পারিনি। ব্যাংকের নিরাপত্তাকর্মী দুলাল এর আগেও একাধিক মেয়ের শ্লীলতাহানি করে। চাকুরিচ্যুত ও মাফ চাওয়ায় ভুক্তভোগী নারী মামলা মোকদ্দমা করেনি।

    ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কৃষি ব্যাংক হরিরামপুর উপজেলা শাখার ব্যবস্থাপক মো: জামাল উদ্দিন বলেন, ঘটনাটি অত্যেন্ত দু:খজনক। এটি মেনে নেওয়া যায়না। ভুল স্বীকার করে নিরাপত্তাকর্মী দুলাল মিয়া সবার সামনে ওই নারী এনজিও কর্মীর পা ধরে মাফ চেয়েছে। এসময় তাকে জুতাপেটা ও মারধর করা হয়। ওই সময়ই তাকে ব্যাংকের নিরাপত্তার দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

    আরও পড়ুন