২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
পুলিশ বাহিনীকে দুর্নীতি ও মাদকমুক্ত করার পদক্ষেপ সিঙ্গাইরে সাত মামলার পলাতক আসামি ডাকাত রিয়াজুল গ্রেফতার এক দিনে ৪৭ মামলার রায়, হাসিমুখে বাড়ি ফিরলেন ৪৬ দম্পতি নোয়াখালী জেলা রোভারের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠিত যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ পরশ ও যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগের ভার্চুয়াল সভা পৌর নির্বাচন ও দলীয় কাউন্সিলকে সামনে রেখে সিঙ্গাইর উপজেলা আ.লীগের বর্ধিত সভা গৃহকর্মীকে ধর্ষণের পর সাততলা থেকে ফেলে দেওয়া হয় ঢাবি ছাত্রী ধর্ষণ: মজনুর যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ঢাকা মহানগর উত্তর আ.লীগের অর্থ সম্পাদক হলেন শিল্পপতি সালাম চৌধুরী টিউশন ফি ছাড়া অন্য খাতে অর্থ নিতে পারবে না স্কুল-কলেজ
  • প্রচ্ছদ
  • লেবাননে ২৭ এপ্রিল থেকে নিখোঁজ  নারী কর্মী শারমিন




  • লেবাননে ২৭ এপ্রিল থেকে নিখোঁজ  নারী কর্মী শারমিন

    জসিম উদ্দীন সরকার, লেবানন: গত ২৭ এপ্রিল সোমবার লেবাননের আধুনিস এলাকা থেকে নিখোঁজ রয়েছেন লেবানন প্রবাসী শারমিন আক্তার, শরীরে করোনা উপস্বর্গ রয়েছে ভেবে চিকিৎসা নিতে গিয়ে আর ফিরে আসেনি। পরবর্তীতে বিভিন্ন হাসপাতাল ও বন্ধবান্ধবের নিকট খুঁজ করেও তাকে পাওয়া যায়নি।  শারমিন মাদারিপুর জেলার কালকিনির কামাল বেপারীর মেয়ে, তার মায়ের নাম ফজিলা বেগম।

    জানা যায়, ঘটনার পরের দিন শারমিনের স্বামী আহমেদ  লেবানন কমিউনিটি নেতা সৈয়দ আমীরকে তার স্ত্রীকে না খুঁজে পাওয়ার বিষয়টি জানান, সৈয়দ আমীর হোসেন বাংলাদেশ দূতাবাসকে বিষয়টি অবগত করেন। শারমিনের স্বামীও তার স্ত্রীকে খুঁজতে বাংলাদেশ দূতাবাসে লিখিত অভিযোগ করেন। শারমিন বেশ কিছুদিন ধরে ঠান্ড জ্বরে ভূগছিল বলে জানান তার স্বামী।

    শারমিনের স্বামী আহমেদ জানান, প্রতিদিনের নেয় গত ২৭ এপ্রিল সোমবার সে কাজে চলে যায়, শারমিন তাকে হোয়াটসাপে একটি ভয়েস বার্তা জানান যে সে চিকিৎসা নিতে হাসপাতালে যাবেন। শারমিনের ভয়ছিল যেহেতু ঠান্ডা জ্বর, যদি করোনা হয়ে থাকে তাই সে চিকিৎসা নিতে যান। কিন্তু কোন হাসপাতালে যাচ্ছেন তা জানায়নি। জানিয়েছে ফার্মেসী থেকে হাসপাতালের খবর নিয়ে যে কোন হাসপাতালে ভর্তি হবেন। এরপর শারমিনকে আর কোন খুজ পাওয়া যায়নি। ঔদিনের পর থেকে তার মোবাইলও বন্ধ।

    সৈয়দ আমীর হোসেন জানান, সে বিস্তারিত জানার পর বাংলাদেশ দূতাবাসে চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স আব্দুল্লাহ আল মামুনকে বিষয়টি অবগত করেন। দুতাবাস খুঁজ নিয়ে নিবেন বলে আস্বাস দেন।

    দূতাবাসের চার্জ দ্যা অ্যাফেয়ার্স আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, বিষয়টি অবগত হবার পর দূতাবাসের পক্ষ থেকে লেবানন বিভিন্ন হাসপাতালে খুজ নিয়েছি, বিশেষ করে যে সকল হাসপাতালে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা দিচ্ছে সে সকল হাসপাতালে খুঁজ নিয়ে মেয়েটির কোন সন্ধ্যান পাওয়া যায়নি। তবে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

    আরও পড়ুন