২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
লেবাননে ফের ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্প, প্রবাসীদের উপচেপড়া ভির লেবানন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত সিঙ্গাইরে দেয়ালে অঙ্কিত বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি বিকৃতি কালের কণ্ঠ সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলনের আজ শুভ জন্মদিন বিএনপির ৪৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে মালয়েশিয়ায় ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত যে কারণে হত্যার শিকার শিশু আল-আমীন, রহস্য উদঘাটন সিঙ্গাইর থানার ওসির পিতার মাগফিরাত কামনায় দোয়ার মাহফিল কানাডা প্রবাসী প্রয়াত জয়নুল আবেদীন স্বরণে দোয়ার মাহফিল তিনদিন পর সিঙ্গাইরে নিখোঁজ শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার মজিবুর রহমান মোল্যার মাগফিরাত কামনায় দোয়া ও মিলাদ মাহফিল

লোক দেখানো কাজ করে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব না: শোভন

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মনে-প্রাণে ধারণ করার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন।

তিনি বলেন, আমরা সব সময় বঙ্গবন্ধুর আদর্শ নিয়ে শুধু আলোচনা করি তা ধারণ করে বাস্তবায়ন করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ মনে-প্রাণে ধারণ করে পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গঠনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে।

মঙ্গলবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগ কতৃর্ক আয়োজিত ‘১৫ আগষ্ট জাতীয় শোক দিবস’ উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

শোভন বলেন, বঙ্গবন্ধু একদিনেই বঙ্গবন্ধু হয়ে উঠেননি। বঙ্গবন্ধু ১ দিনেই জাতির পিতা হয়ে উঠেননি। তিনি তার জীবনের বেশিরভাগ সময়ই কাটিয়েছিলেন সে সে সময়ের যারা শাসক ও শোষক শ্রেণীর তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করে জেলখানায়। সব সময় অসহায় ও নির্যাতিত মানুষের পাশে থেকে লড়াই করেছেন। তিনি যা ধারণ করতেন তা বাস্তবায়ন জন্য তিনি তার জীবন দিয়ে হলেও চেষ্টা করতেন। যার ফলশ্রুতিতে তিনি হয়ে উঠেছেন আমাদের বঙ্গবন্ধু আমাদের জাতির পিতা।’

শোভন আরো বলেন, ১৫ই আগস্ট বাঙালি জাতির ইতিহাসের সেই কলঙ্কময় দিন যেদিন আমরা হারিয়েছি আমাদের জাতির পিতাকে, আমরা হয়েছি অভিভাবক শূন্য। আজকে এতদিন পরেও বাংলাদেশের অনেক সমস্যা কিন্তু বঙ্গবন্ধু ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীন করার পর চার বছরে দেশটিকে ঘুরে দাঁড় করিয়েছেন। তিনি এক বছরের মধ্যে বাংলাদেশের সংবিধান প্রণয়ন করেছিলেন। দেড়শ’র মতো দেশের তিনি স্বীকৃতি নিয়েছেন। জাতিসংঘে বাংলায় ভাষণ দিয়েছেন, সব মিলিয়ে দেশটিকে একটি জায়গায় দাঁড় করিয়ে ছিলেন। কিন্তু হঠাৎ করে পাকিস্তানি প্রেতাত্মারা বাংলাদেশকে মেনে নেয়নি তাদের চক্রান্তের কারণে আমরা বঙ্গবন্ধুকে হারিয়েছি। তার নেতৃত্ব দিয়েছে খুনি মোস্তাক ও জিয়াউর রহমান।

ছাত্রলীগ আরো বলেন, মুখে বঙ্গবন্ধু জয় বাংলা স্লোগান দিলে চলবে না সেগুলো ধারণ করে নীরবে কাজ করতে হবে। লোক দেখানো কাজ করে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব না।মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ হয়েছে ও ২ লাখ মা বোন তাদের ইজ্জত হারিয়েছে তাদের অনেকের পরিচয় কিন্তু আমরা জানিনা কিন্তু তারা নীরবে দেশের জন্য কাজ করেছে। নীরবে দেশকে দিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হয় আমরা এক উন্নত জীবনযাপন করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণ হয় সেটা বাস্তবায়ন করব।

আরও পড়ুন