১লা ডিসেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • সাভারে বিশেষ একটি মার্কেট চালুর প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের সড়ক অবরোধ




  • সাভারে বিশেষ একটি মার্কেট চালুর প্রতিবাদে ব্যবসায়ীদের সড়ক অবরোধ

    সাভার প্রতিনিধি: সাভারে স্বাস্থ্য বিধি না মানার কারনে গত ১৭ তারিখ থেকে সকল মার্কেট ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয় উপজেলা প্রশাসন। এর মাত্র দুই দিনের মাথায় মঙ্গলবার সকালে (১৯ মে) হঠাৎ করেই বাজার বাসস্ট্যান্ড এলাকার সিটি সেন্টার নামের একটি শপিং মল চালু করা হয়। তবে বাসস্ট্যান্ড এলাকায় শুধুমাত্র একটি শপিংমল চালু করার কারনে পাশের বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করে। এসময় তারা বিশেষ একটি মার্কেট চালু করার সিদ্ধান্ত উদ্দেশ্য প্রণোদিত বলে দাবী করেন।

    বিক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে বলেন, গত ১০ মে থেকে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সাভারের সকল মার্কেট চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেয় উপজেলা প্রশাসন। তাদের অনুমতি নিয়েই মার্কেট ব্যবসায়ীরা দোকান চালু রাখেন। তবে হঠাৎ করেই এর ১৬ তারিখে স্বাস্থ্য বিধি না মানার অভিযোগে গণ বিঞ্জপ্তি দিয়ে উপজেলা প্রশাসন সাভারের নিত্য প্রয়োজনীয় দোকান ব্যতিত সকল মার্কেট বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়। কিন্তু এর দুই দিন পার না হতেই গত সোমবার উপজেলা প্রশাসন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সিটি সেন্টার নামের একটি মার্কেট চালুর সিদ্ধান্ত নেয়। তবে বিশেষ একটি মার্কেট চালু রাখার সিদ্ধান্তে ক্ষোভে ফেটে পড়েন অন্যান্য মার্কেটের ব্যবসায়ীরা।

    প্রতিবাদে মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক নিউ মার্কেটের সামনে বিভিন্ন দোকান মালিক ও কর্মচারীরা জড়ো হতে থাকে। এক পর্যায়ে তারা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন। এতে মহাসড়কে বন্ধ হয়ে যায় যানচলাচল। ভোগন্তির কবলে পড়েন শতাধিক পণ্যবাহী গাড়িসহ বিভিন্ন যাত্রীরা।

    ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করে বলেন, লক ডাউনের কারনে দীর্ঘদিন যাবৎ বন্ধ ছিল সাভারের সকল বিপণিবিতান। বিপনিবিতান ব্যবসার সাথে সংশ্লিষ্ট অনেক কর্মচারীরা মানবেতর জীব যাপন করছে। তবে বন্ধ থাকলে সকল মার্কেট বন্ধ করে দিতে হবে। তাছাড়াও সিটি সেন্টারের চাইতে নিউ মার্কেট অনেক বড়ো একটি বিপনীবিতান। সেক্ষেত্রে এই মার্কেটেও স্বাস্থ্য বিধি মেনে চালু করা যেতে পারতো। শুধু মাত্র বিশেষ একটি মার্কেট সিটি সেন্টার চালু রাখা উদ্দেশ্যপ্রনোদিত বলে উল্লেখ করেন তারা।

    এদিকে সিটি সেন্টারের এক দোকান মালিক বলেন, মার্কেট কর্তৃপক্ষের কথায় তিনি সকালে দোকান চালু করেন। এর কিছু সময় পরই আবার দোকান বন্ধ করেও দেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান।

    অন্যদিকে এ ব্যাপারে সাভার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এফ এম সায়েদ বলেন, ব্যবসায়ীরা সড়ক অবরোধ করে রাখার খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌছে তাদেরকে বুঝিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। পরে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

    এদিকে সাভার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পারভেজুর রহমান বলেন, সাভারের সকল মার্কেট বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর অনেকেই মার্কেটের উদ্দেশ্যে ঢাকাতে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

    এ কারনে উপজেলায় এক মিটিংএ স্বাস্থ্য বিধি মেনে সাভার, আশুলিয়া ও হেময়াতেপুর এলাকায় তিনটি বিপনীবিতান চালু রাখার প্রস্তাব করা হয়। সেই অনুযায়ী সাভারের সিটি সেন্টার ও হেমায়েতপুরের লালন টাওয়ার ও আশুলিয়ার অন্য একটি বিপনীবিতান চালু করার কথা উল্লেখ করা হয়। তবে উদ্দেশ্যপ্রনোদিতভাবে বিশেষ একটি মার্কেট সিটি সেন্টার চালু রাখার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি অভিযোগটি ভিত্তিহীন বলে দাবী করেন। এছাড়াও বর্তমানে মার্কেটটি বন্ধ রয়েছে বলেও জানান তিনি।

    অন্যদিকে ঢাকা জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো : শহিদুজ্জামান কাছে ব্যবসায়ীদের সড়ক অবরোধ ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্দেশ্যপ্রণোদিতের বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি তিনি শুনেছেন, এ নিয়ে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষ কাজ করছে বলে জানান তিনি।

    আরও পড়ুন