১০ই আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ |
  • প্রচ্ছদ
  • সিংগাইরে বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীর নামে মামলা, দু’জন গ্রেপ্তার
  • সিংগাইরে বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীর নামে মামলা, দু’জন গ্রেপ্তার

    জনশক্তি ঢাকা:

    মানিকগঞ্জের সিংগাইরে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ধল্লা ইউনিয়নের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুরের অভিযোগে স্থানীয় বিএনপির ৪৭ নেতাকর্মীর নাম উল্লেখসহ ৭২ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা হয়েছে। গত রবিবার ২৩ (ডিসেম্বর) রাতে ধল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. দেলোয়ার হোসেন খান এই মামলা করেন। তবে স্থানীয় বিএনপি নেতাকর্মীদের অভিযোগ, অসৎ উদ্দেশে মামলার বাদি দেলোয়ার হোসেন খান ও তার লোকজন নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর করে ধানের শীষের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করেছেন। এ মামলায় শাহজাহান ও ফিরোজ নামে দুই জনকে গ্রেপ্তার করে জেলহাজতে পাঠিয়েছে পুলিশ।

    মামলার বাদী দেলোয়ার হোসেন খান জানান, গত রবিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে বিএনপি নেতা ইসমাইল হোসেন, কলিমুদ্দন, যুবদল নেতা ইকবাল হোসেন শামীম, বাহাউদ্দিন, বদরুল আলম বাদল, আলীনুর ও শহীদ মোল্লার নেতৃত্বে ধানের শীষ প্রতীকের ৬০-৭০ জন সমর্থক উপজেলার ধল্লা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ সংলগ্ন আওয়ামী লীগ প্রার্থী কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগমের নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা করে। এ সময় ক্যাম্পে থাকা চেয়ার টেবিল ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে ৪০ হাজার টাকা ক্ষতি সাধন করে তারা ১৫ হাজার টাকা মূল্যের একটি মাইক সেট নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বিএনপির ৪৭ জন নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত ২০-২৫ জনের নামে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

    মামলার এজহারভুক্ত আসামিরা হলেন, পশ্চিম বাস্তা গ্রামের ইসমাইল হোসেন, মহসীন, সজিব, শাহজাহান, ফিরোজ, পূর্ব বাস্তা গ্রামের কলিমুদ্দন, ধল্লা চরপাড়া গ্রামের হাবিবুর রহমান, ধল্লা মধ্যপাড়া গ্রামের অলি, আওলাদ হোসেন, আবুল কালাম, মোকলেছ, আলতাফ হোসেন, আমীনুর ইসলাম, ভাটিরচর গ্রামের ইউপি মেম্বার আল-আমীন, মুহিত, মোয়াজ্জেম, মাসুদ রানা, সদর আলী, খাসের চর গ্রামের সাইফুল ইসলাম, মোসলেম উদ্দিন টিপু, আজাদ, মতি, ফোর্ডনগর গ্রামের ইকবাল হোসেন শামীম, সাইফুল ইসলাম, শ্যামল, আলীনুর রহমান, মাহবুল্লাহ, তার ছেলে মোশারফ, ফোর্ডনগর খালপাড়া গ্রামের চুন্নু মিয়া, ফোর্ডনগর মোল্লাপাড়া গ্রামের কালাম মোল্লা, হারুন মিয়া, মোরাদ, সোনা মিয়া ওরফে ইব্রাহীম, ফোর্ডনগর ভুতাপাড়া গ্রামের লতিফ, আছর উদ্দিন, আঠালিয়া গ্রামের বদরুল আলম বাদল, ইদ্রিস আলী, ইমদাদ, জায়গীর গ্রামের শহীদ মোল্লা, বাহাউদ্দিন, ভুমদক্ষিন গ্রামের সাকু মেম্বার, শফি কাজী, মোজাম্মেল, মেদুলিয়া গ্রামের ইছহাক, তমেজ উদ্দিন, মজিবর রহমান ও নয়াপাড়া গ্রামের মান্নান। তারা সবাই স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মী ও সমর্থক।

    এদিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার মইনুল ইসলাম খান শান্ত বলেন, ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীদের হামলা-মামলা ও পুলিশের ভয়ে বিএনপি নেতাকর্মীরা ঘর বাড়িতে ঘুমাতে পারছে না। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা নিজেরাই ঘটনা ঘটিয়ে আমাদের লোকজনের বিরুদ্ধে মামলা দিচ্ছে। বিএনপি নেতাকর্মীরা যেন ভোট কেন্দ্রে যেতে না পারে সেজন্য পরিকল্পিতভাবে আওয়ামী লীগের লোকজন নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর করে নিরাপরাধ মানুষের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন।

    নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী জানান, ধল্লা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খান ও তার লোকজন নৌকা প্রতীকের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর করে। ঘটনার সময় বিএনপির কোনো নেতাকর্মী সেখানে ছিলেন না বলে জানান তারা।

    সিংগাইর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন জানান, আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় বিএনপির ৭২ জনের নামে মামলা হয়েছে। মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

    জনশক্তি/এমএইচ

     

    আরও পড়ুন

    [X]