১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ |

সিঙ্গাইরে বাসচাপায় অটোবাইক চালক নিহত, আহত ১৩

মোবারক হোসেন

মানিকগঞ্জের সিংগাইরে যাত্রীবাহী বাস চাপায় শাহা আলম নামে এক অটোবাইক চালক নিহত হয়েছে। নিহত অটোবাইক চালক সিংগাইর পৌর এলাকার আঙ্গারিয়া মহল্লার মৃত দলিল বেপারীর ছেলে। এ ঘটনায় বাস ও অটোবাইকের ১৩ জন যাত্রী আহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে উপজেলার হেমায়েতপুর-সিংগাইর-মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের কিটিংচর বাসষ্ট্যা- এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

থানা পুলিশ ও প্রত্যেক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার হেমায়েতপুর-সিংগাইর-মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কের জয়মন্টপ ইউনিয়নের কিটিংচর এলাকায় শুকতারা সার্ভিসের একটি যাত্রীবাহি বাস (মেহেরপুর-জ-১১-০০১৪) মাছ বুঝাই একটি অটোবাইককে চাঁপা দিয়ে সড়কের পাশে গভীর খাদে পড়ে যায়। এতে অটোবাইক দুমরে-মুচরে গিয়ে ঘটনাস্থলে চালক শাহা আলম নিহত হন। এঘটনায় আহত হন বাস ও অটোবাইকে থাকা অন্তত ১৩ জন যাত্রী। এদের মধ্যে একজন উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে, আটজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, দুইজনকে সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। আহত অপর দুই নজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

আহতরা হলো- সিঙ্গাইর পৌর এলাকার আঙ্গারিয়া মহল্লার মেঘলালের ছেলে লক্ষন হালদার (৬০), একই এলাকার মৃত ভেবল হালদারের ছেলে ছেলে গনেশ হালদার (৬০), ফজল হকের ছেলে সোবাহান (৪০), ঘোনাপাড়া এলাকার শহীদের স্ত্রী কুলছুম (৩৮), বিনোদপুর গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে আনিছুর রহমান ওরফে লাভলু (৫৮), কাশিমনগর গ্রামের রহিজ উদ্দিনের ছেলে পনির, উপজেলার চারিগ্রাম গ্রামের ফজলু হকের স্ত্রী রেশমা (২৮), জেলার হরিরামপুর উপজেলার দিয়াপাড়া গ্রামের বাচ্চু মিয়ার ছেলে রাসেল (২১), সদর উপজেলার বৈট্রা গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে সাদেক (৪৪), (৩৮), কাইশাখালি গ্রামের মৃত একরাম উদ্দিনের ছেলে জলিল উদ্দিন (৫৮), বাড়াইভিকুরা গ্রামের শাহানুর হোসেনের ছেলে জীবন (২১) ও সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া গ্রামের রুপচানের ছেলে যশরথ (৫০)। অপর একজন আহত ব্যক্তির নাম পরিচয় জানা যায়নি।

এদিকে দুর্টনার পর হেমায়েতপুর-সিংগাইর-মানিকগঞ্জ আঞ্চলিক সড়কে প্রায় এক কিলোমিটার এলাকায় যানজটের সুষ্টি হয়। এতে প্রায় এক ঘণ্টা যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। ভোগান্তির শিকার হন এই সড়কে চলাচলকারী দুরদুরান্তের হাজারো মানুষ।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক এসএম ফেরদৌস, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুনা লায়লা ও থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) রাকিবুজ্জামানা। তারা নিহত ও আহতের খোজখবর নেন।

পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) রাকিবুজ্জামানা বলেন, এঘটনায় থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন