২৩শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৯ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |

হবিগঞ্জের ৭ গ্রামের ৬৫৭টি পরিবারকে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান

জনশক্তি রিপোর্ট: হবিগঞ্জের ৭ গ্রামের ৬৫৭টি পরিবারকে নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানহবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গের পুকড়া ইউনিয়নের ৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের আউয়াল মহল, আমিরপুর, কাকুড়া, জাঙ্গালিয়া, শাহেপুর, জলিলপুর, ফতেহপুরসহ ৭টি গ্রামের ৬৫৭টি পরিবারকে নতুন বিদ্যুত সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে সুইচ টিপে ও ফলক উন্মোচন বিদ্যুত সংযোগ প্রদানের উদ্বোধন করেন হবিগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মোঃ আব্দুল মজিদ খান। এ উপলক্ষে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথিও ছিলেন সংসদ সদস্য।

ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি নানু মিয়ার সভাপতিত্বে এবং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মোফাচ্ছল হোসেনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত জনসভায় অন্যান্যদের মধ্যে বিশেষ অতিথি ছিলেন পল্লীবিদ্যুত সমিতির বানিয়াচং উপজেলার ডিজিএম মোঃ আমজাদ হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ার হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ দাশ, আওয়ামীলীগ নেতা শেখ আজিজুল হক, বিশিষ্ট মুরুব্বী আব্দুল হক, মোতাব্বির হোসেন, আরব আলী খান, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আফরোজ মিয়া, সাধারণ সম্পাদক শেখ আলা উদ্দিন, সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ জহুর আমিন, বানিয়াচঙ্গ উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আতিক হাসান আবিদ, ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল তালুকদার, বড়ইউড়ি ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আলী আহমেদ জুনেদ প্রমূখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাফেজ সামরুল ইসলাম। পবিত্র কোরআন থেকে তালাওয়াত করেন হাফেজ রুবেল মিয়া। গীতাপাঠ করেন রানু ঠাকুর। জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান বলেন-জননেত্রী শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার পর দেশের সর্বোচ্চ উন্নয়ন হয়েছে।

আমি ও নির্বাচিত হওয়ার জননেত্রী শেখ হাসিনার আন্তরিক সহযোগিতায় বানিয়াচঙ্গ-আজমিরীগঞ্জ উপজেলার সর্বোচ্চ উন্নয়ন করেছি। এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রয়েছে। তিনি আরো বলেন-ইতো-মধ্যে আজমিরীগঞ্জ উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়ন করেছি। এ বছরের ভিতরেই বানিয়াচঙ্গ উপজেলাকে শতভাগ বিদ্যুতায়নের আওতায় আনা হবে। তিনি আরো বলেন-পুকড়া ইউনিয়ন আমার নিজে ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নের কি উন্নয়ন করতে হবে সেটা আমার কাছে এসে কাউকে বলতে হবে না। ইতো-মধ্যে আমি পুকড়া ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার জন্য রাস্তাঘাট, কালভার্ট, বিজ, স্কুল, কলেজের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। গ্রামে গ্রামে বিদ্যুতের আলো পৌছে দিয়েছি।

এ ইউনিয়নের আর ৩/৪টি গ্রামে বিদ্যুত পৌছলে ইউনিয়ন শতভাগ বিদ্যুতায়ন হবে। তবে আপনাদের বিদ্যুতের সঠিক ব্যবহার করতে হবে এবং বিদ্যুতের বিলও সময় মতো দিতে হবে। এমপি মজিদ খান আরো বলেন-এলাকার উন্নয়ন হলো আমার প্রধান কাজ। যতদিন বেচেঁ থাকবো মানুষের কল্যাণেই কাজ করবো ইনশাল্লাহ। এজন্য তিনি জনগণের আন্তরিক ভালবাসা ও দোয়া কামনা করেন। সভায় বক্তারা বলেন এমপি অ্যাডভোকেট আব্দুল মজিদ খান নির্বাচিত হওয়ার পর জননেত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় স্বাধীন পর থেকে অবহেলিত পুকড়া ইউনিয়নে সর্বোচ্চ উন্নয়ন করেছেন। এজন্য পুকড়া ইউনিয়নবাসী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও এমপি মজিদ খানের প্রতি আন্তরিক ভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। সভায় বক্তারা এমপি মজিদ খানকে মন্ত্রী করার জন্য প্রধানমন্ত্রীর নিকট জোর দাবি জানান। উল্লেখ্য ১কোটি ৮০লাখ ৭হাজার ৬০০টাকা ব্যয়ে ৭গ্রামে বিদ্যুতায়ন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন