২৮শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৫ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ |
শিরোনাম
সিঙ্গাইর পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাশার জয়ী আজ সিঙ্গাইর পৌরসভা নির্বাচন, সুষ্ঠু ভোট নিয়ে শঙ্কা নৌকার বিজয় নিশ্চিত, আ.লীগ প্রার্থী বাশার মানিকগঞ্জ বার নির্বাচনে সভাপতি-সম্পাদকসহ ১১ পদে বিএনপি প্রার্থী জয়ী সিঙ্গাইর পৌর নির্বাচনে নৌকার বিজয় নিশ্চিত করতে একাট্টা আ.লীগ মানিকগঞ্জ বার নির্বাচন: এবারও আলোচনায় সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী লুৎফর লেবানন বিএনপির ভার্চুয়াল প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে লেবানন আ’লীগের আলোচনা সভা যথাযথ মর্যাদায় লেবাননে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন অগ্নিকাণ্ডে সিঙ্গাইর সদর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় ভস্মীভুত

৫২ পৌরসভায় ধানের শীষের টিকিট পেলেন যারা

জনশক্তি রিপোর্ট:

চতুর্থ ধাপের পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে ৫২ প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে বিএনপি। শনিবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম, সিলেট ও রংপুর; দুপুর ১২টায় রাজশাহী, খুলনা ও বরিশাল এবং দুপুর ২টায় ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগে থাকা পৌরসভার প্রার্থীদের গুলশান কার্যালয়ে থেকে ‘দলীয় প্রত্যায়নপত্র’ হস্তান্তর করা হবে।

শুক্রবার বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ ধাপে ৫৬টি পৌরসভায় আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। বাকি ৪ পৌরসভায় মেয়র পদে শনিবারের মধ্যে প্রার্থী চূড়ান্ত করার কথা রয়েছে দলটির।

৫২টি পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনয়ন পেলেন যারা- ঠাকুরগাঁও সদরে শরিফুল ইসলাম শরিফ, ঠাকুরগাঁও রানীশংকইলে মো. মাহমুদুননবী, লালমনিরহাট সদরে মোশারফ হোসেন রানা, লালমনিরহাটের পাটগ্রামে একেএম মোস্তাফা সালাউজ্জামান ওপেল, জয়পুরহাট আক্কেলপুরে আলমগীর চৌধুরী, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে ওজিউল ইসলাম, রাজশাহীর নওহাটায় শেখ মো. মকবুল হোসেন, রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে গোলাম কিবরিয়া, রাজশাহীর তানোরে মো. মিজানুর রহমান মিজান, রাজশাহীর তাহেরপুরে আবু নাঈম সামসুর রহমান (মিন্টু), নাটোরের বড়াইগ্রামে ইসাহাক আলী, নাটোর সদরে জিল্লুর রহমান খান চৌধুরী, চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে শাহাজাহান কবীর, চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় মীর মহিউদ্দিন।

যশোরের চৌগাছায় আব্দুল হালিম, যশোরের বাঘারপাড়ায় মো. আব্দুল হাই মনা, বাগেরহাট সদরে সাইদ নিয়াজ হোসেন, সাতক্ষীরা সদরে তাজকিন আহমেদ, পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় হুমায়ুন কবির, বরিশালের মুলাদীতে মো. আল মামুন, বরিশালের বানারীপাড়ায় রিয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ, টাঙ্গাইলের গোপালপুরে খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম, টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে আলী আকবর, জামালপুরের মেলান্দহে মনোয়ার হোসেন, শেরপুর সদরে এবিএম মামুনুর রশিদ পলাশ, শেরপুরের শ্রীবরদীতে আব্দুল হাকিম, নেত্রকোনা সদরে আব্দুল্লাহ্ আল মামুন খান।

কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে এহেসান কুফিয়া, কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জে আব্দুল্লাহ আল মাসুদ সুমন, মুন্সীগঞ্জের মিরকাদিমে মিজানুর রহমান, নরসিংদী সদরে মো. হারুন আর রশিদ, নরসিংদীর মাধবদীতে আনোয়ার হোসেন, ফরিদপুরের নগরকান্দায় মো. আলিমুজ্জামান মিয়া, মাদারীপুর কালকিনিতে মো. কামাল হোসেন, শরীয়তপুরের ডামুড্যায় নাজমুল হক সবুজ মিয়া।

সিলেটের কানাইঘাটে মো. শরিফুল হক, হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে মো. নাজিমউদ্দিন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় মো. জয়নাল আবেদীন আব্দু, কুমিল্লার হোমনায় মো. আব্দুল লতিফ, কুমিল্লার দাউদকান্দিতে নূর মো. সেলিম সরকার, চাঁদপুরের কচুয়ায় মো. হুমায়ুন কবির প্রধান, চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে মো. ইমাম হোসেন, নোয়াখালীর চাটখিলে মোস্তফা কামাল, নোয়াখালীর সোনাইমুড়িতে মো. মোতাহের হোসেন, লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে সাহেদ আলী পুটু।

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় এজেডএম মঈনুল হক চৌধুরী, চট্টগ্রামের পটিয়ায় মো. নুররুল ইসলাম, চট্টগ্রামের চন্দনাইশে মাহবুবুল আলম চৌধুরী, খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় মো. শাহজালাল (কাজল), রাঙ্গামাটি সদরে মোহাম্মদ মামুনুর রশিদ ও বান্দরবান সদরে মোহাম্মদ জাবেদ রেজা।

আরও পড়ুন